বনধে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে মিশ্র প্রভাব, কলকারখানা খোলা, বিজেপি বিধায়কের গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ

প্রতীতি ঘোষ, আমাদের ভারত ব্যারাকপুর, ২৭ সেপ্টেম্বর:
কেন্দ্রী সরকারের নতুন কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে এবং বেড়ে চলা বিদ্যুতের বিলের বিরোধিতা সহ একাধিক দাবিতে সংযুক্ত কিষান মোর্চার ডাকে সোমবার সকাল থেকে বনধ পালিত হয় দেশ জুড়ে। ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে বনধ শুরু হলেও তেমন প্রভাব পরেনি ব্যারাকপুরের মিল কারখানাগুলোতে। ব্যারাকপুরের শিল্পাঞ্চলে ইতিমধ্যেই শ্রমিক মালিক অসন্তোষের জেরে অনেক মিল বন্ধ হয়ে রয়েছে। যে কটি মিল খোলা রয়েছে সেগুলিতে এদিন কাজ করেন শ্রমিকরা।

অন্যান্য দিনের মত এদিন ব্যারাকপুরের যে মিলগুলি খোলা রয়েছে সেগুলিতে শ্রমিকদের উপস্থিতির হার ছিল চোখে পড়ার মতো। যেমন রিলায়েন্স জুট মিল, জগদ্দল জুট মিল, চাপদানি জুট মিল সহ অন্যান্য খোলা মিলগুলিতে উৎপাদন স্বাভাবিক রাখতে শ্রমিকদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মত। করোনা কারনে বহুদিন বন্ধ ছিল মিল তাই শ্রমিকরা পুজোর আগে আর মিলের কাজ বন্ধ রাখার পক্ষপাতী না। ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে বেশির ভাগ মিল সারা বছর খোলা থাকে না। যার ফলে সমস্যায় ভোগেন এখানকার শ্রমিকরা। করোনা পরিস্থিতির জন্য সমস্ত শ্রমিকদের একসাথে কাজ হয় না মিলগুলিতে ফলে রোজ কাজ না থাকলে সমস্যায় পড়েন শ্রমিকরা। এদিন কাজে যোগ দিতে আসা শ্রমিকরা বলেন, “আমাদের রোজ কাজ হয় না। তার মধ্যে যদি আবার মিল বনধ হয় তাহলে কাজ হবে না। ফলে আমরা কি খাবো। আমাদের কথা মিল চালু রেখেই আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করতে হবে।”

তবে, ধর্মঘটের মিশ্র প্রভাব দেখা গেলো ব্যারাকপুর মহকুমায়। বনধ সফল করতে ব্যারাকপুর, শ্যামনগর, বেলঘরিয়ায় বনধ সমর্থকরা মিছিল করে। এদিন শিয়ালদহ মেন লাইনে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক ছিল। তবে সিপিএম নেত্রী গার্গী চ্যাটার্জির নেতৃত্বে এদিন শ্যামনগরে রেল লাইনের ওপর বসে বিক্ষোভ দেখান বনধ সমর্থকরা। ফলে বেশ কিছুক্ষন বন্ধ থাকে রেল পরিষেবা। সেই সঙ্গে শ্যামনগর ঘোষ পাড়া রোডে মিছিল ও অবরোধ করে বনধ সমর্থকরা। এরপর পুলিশ এসে অবরোধ তুলে দেয়।

সপ্তাহের প্রথম দিন রাস্তায় সরকারি ও বেসরকারি বাস অন্যান্য দিনের মত নামলেও যাত্রী সংখ্যা ছিল অনেক কম। বেলা গড়াতেই বনধ সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকার, বিধায়কের নিরাপত্তা রক্ষীদের সঙ্গে বচসা বাঁধে।

বনধ সফল করার জন্য সকাল থেকেই রাস্তায় নামেন সিপিএম কর্মীরা। জায়গায় জায়গায় অবরোধ করেন বনধ সমর্থকরা। নৈহাটি সাহেব কলোনি মোড়ে বনধ সমর্থকদের অবরোধ চলাকালে বিক্ষোকারীদের বিক্ষোভের মুখে পরলেন বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকার। অবরোধ কারীদের তুলতে নৈহাটি থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে আসে।। অবরোধ চলাকলীন সেই সময় ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন বিজেপি বিধায়ক। অবরোধের জেরে কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়েতে আটকে যায় বিজেপির হরিণঘাটা বিধায়ক অসীম সরকারের গাড়ি।

গাড়ি দেখে বামফ্রন্টের কর্মী সমর্থকরা স্লোগান দিতে শুরু করেন। এরপর অসীম সরকারের দেহরক্ষীরা অবরোধকারীদের হঠাতে গেলে তাদের সাথে অবরোধকারীদের তর্ক বিতর্ক শুরু হয়। ফলে ব্যপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়েতে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here