এক জাতি এক বেতন দিবস, নূন্যতম মজুরি নির্ধারণ ! বাম-বিজেপি সহমত

আমাদের ভারত, ১৬ নভেম্বর: নীতির প্রশ্নে সম্পূর্ণ ভিন্ন মেরুতে অবস্থান বাম ও বিজেপির। কিন্তু শ্রমিকদের স্বার্থ কিছু বিষয় সহমত এই ভিন্ন মেরুর দুই দল। শ্রমিক শ্রেণীর স্বার্থ রক্ষা করতে নতুন ভাবনা রয়েছে মোদী সরকারের। শ্রমজীবী মানুষের কথা ভেবে এবার এক জাতি এক বেতন দিবস ঘোষণা করতে চায় কেন্দ্র সরকার। নির্ধারণ করতে চায় নূন্যতম মজুরি। এই নূন্যতম মজুরি নিয়ে দীর্ঘদিন আন্দোলন করছে বামেরা।

কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রীর সন্তোষ গাঙ্গুয়ার বলেন, গোটা দেশে বিভিন্ন সেক্টরে একদিনে বেতনের ব্যবস্থা করতে চায় সরকার। শ্রমজীবী মানুষ যাতে নির্দিষ্ট দিনে বেতন পায়, কোন শ্রমিক যাতে প্রাপ্য বেতন থেকে বঞ্চিত না হয় তার জন্যেই এই এক জাতি এক বেতন দিবস আইন পাশ করাতে চায় মোদী সরকার। একই সঙ্গে সারাদেশে অভিন্ন ন্যূনতম মজুরিও ঠিক করতে চাইছে সরকার। এর ফলে শ্রমিকদের উন্নত জীবন যাপনের সাহায্য হবে বলে মনে করছে শ্রমমন্ত্রী।

এই অভিন্ন নূন্যতম মজুরির দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে বামপন্থী দলগুলো। তাদের দাবি, অভিন্ন ন্যূনতম মজুরি ১৮ হাজার টাকা করতে হবে।

কেন্দ্র সরকার পেশাগত সুরক্ষা, স্বাস্থ্য ও কাজে শর্তাদি কোড, মজুরি সম্পর্কিত কোড বাস্তবায়নের পথে এগোচ্ছে। সংসদ ইতিমধ্যেই মজুরি সংক্রান্ত কোডটি পাশ করেছে সরকার। এর বাস্তবায়নের জন্য বিধি তৈরি করেছে।

চলতি বছরের ২৩ জুলাই ও এস এইচ কোড লোকসভায় পেশ করা হয়েছিল। এর ফলে স্বাস্থ্যসুরক্ষা ও কাজের শর্ত নিয়ে তেরোটি কেন্দ্রীয় শ্রম আইন একসঙ্গে হয়ে যাবে। ও এস এইচ কোড অনুযায়ী শ্রমিককে আবশ্যিকভাবে তার নিয়োগপত্র দিতে হবে। পাশাপাশি বছরেরষ মেডিকেল চেকআপ এর ব্যবস্থা করতে হবে।

কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী বলেন, বিজেপি ২০১৪-য় ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মোদী সরকার শ্রম আইন সংস্কারের কাজ করে চলেছে। ৪৪ টি জটিল শ্রম আইন সরলীকরণের উদ্যোগ নিয়েছে মোদী সরকারবলে দাবি তার।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here