চাকরিপ্রার্থীর বদলে চাকরিদাতা বাড়ানোর উপর জোর দিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন শিক্ষা নীতি: মোদী

আমাদের ভারত,১ আগস্ট:দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় আসতে চলেছে আমূল পরিবর্তন।মাধ্যমিক হয়ে যাচ্ছে গুরুত্বহীন। দশম ও দ্বাদশে আর বোর্ডের পরীক্ষা নয়। তার বদলে চালু হচ্ছে সেমিস্টার প্যাটার্নে পরীক্ষা। ১০+২ বদলে ৫+৩+৩+৪ প্যাটার্নে স্কুল শিক্ষা হবে এবার। নতুন এই ব্যবস্থায় পছন্দের বিষয় বেছে নিতে পারবে পড়ুয়ারা। আর এই নতুন জাতীয় শিক্ষা নীতির ফলে দেশে চাকরিদাতাদের সংখ্যা বাড়বে বলেই দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

শনিবার স্মার্ট ইন্ডিয়া হেকালেথানে প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন নতুন শিক্ষাব্যবস্থায় সরকার চাকরিপ্রার্থীদের থেকে বেশি জোর দিয়েছে চাকরিদাতা তৈরির বিষয়টিতে। প্রাথমিক শিক্ষা থেকে উচ্চ শিক্ষার সব স্তরে জোর দেওয়া হয়েছে নতুন শিক্ষা পদ্ধতিতে। সরকারের উদ্দেশ্য ৫০% এনরোলমেন্ট ধরে রাখা।

নতুন শিক্ষা নীতির ফলে একজন পড়ুয়া একাধিক বিষয়ে পড়ার সুযোগ পাবে। পড়ুয়া যা পড়তে চাইবে সেটাই সে পড়ার সুযোগ পাবে। মোদী বলেন, দ্রুত পাল্টে যাওয়া এই দুনিয়ায় আমাদেরও দ্রুত বদলাতে হবে। জীবন যাত্রার মানকে উন্নত করতে দেশের যুবসমাজকে বড় ভূমিকা নিতে হবে বলেও মত প্রকাশ করেন তিনি। তাঁর কথায় স্কুলের বোঝা বোয়ার দিন শেষ করে আগামী দিনে শিক্ষা আনন্দের সাথে গ্রহন করার দিকে এগোচ্ছে ।

মোদী বলেন,বহু বছর ধরে যে শিক্ষা ব্যবস্থা ছিল তার ফলে পড়ুয়াদের ওপর বোঝা তৈরি হচ্ছিল। নতুন যে শিক্ষা ব্যবস্থায় তৈরি করা হয়েছে পড়ুয়া ও তাদের ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে।

বুধবার দেশে শিক্ষানীতির আমূল সংস্কারের কথা ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। নতুন শিক্ষানীতি অনুযায়ী দশম ও দ্বাদশ শ্রেণিতে নতুন করে বোর্ডের পরীক্ষার পরিবর্তে আটটি সেমিস্টার আনা হয়েছে। প্রাক প্রাথমিকে ওয়ান ও টুকে যুক্ত করা হয়েছে। উচ্চ শিক্ষাতেও আনা হয়েছে বদল। এমফিল তুলে দেওয়া হয়েছে। ল ও মেডিকেল ছাড়া সব কলেজকে এক ছাতার তলায় আনার কথা বলা হয়েছে। মাতৃভাষায় শিক্ষার উপর জোর দেওয়া হয়েছে। ক্লাস ৬ থেকেই কোডিং শেখানোর কথা বলা হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here