দুর্নীতি ও পরিবার বাদকে সরিয়ে উন্নয়নশীল থেকে উন্নত দেশ হবার ডাক মোদীর

আমাদের ভারত, ১৫ আগস্ট:
আজ ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লা থেকে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী পরিবারবাদ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হন। তাঁর মতে ভারত তার স্বপ্ন পূরণ থেকে পিছিয়ে যাচ্ছে কারণ দুর্নীতি ও পরিবারবাদ তার বেড়ি হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, ভারতকে আত্মনির্ভরশীল করতে এই দুই শৃঙ্খলকে সরাতেই হবে। এই কাজে তিনি দেশবাসীর সহযোগিতা আহ্বান করেন

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ আত্মনির্ভরশীল হবার পথে প্রতিদিন এগিয়ে চলেছে। আজ দেশের শিশুরাও বিদেশী খেলনা বর্জন করেছে। তিনি বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইকে আরও জোরদার করতে হবে। পরিবার তন্ত্রের রাজনীতিতে পরিবারের লাভ হয় দেশের উপকার হয় না। দেশ থেকে পরিবারতন্ত্রের রাজনীতি দূর করার ডাক দেন তিনি। মোদী আহ্বান জানান, দুর্নীতি ও পরিবারবাদের বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করতে।

মোদী বলেন, দেশে যে আগে ভালো প্লেয়ার ছিল না তেমনটা নয়। কিন্তু পরিবারবাদের ভিত্তিতে নির্বাচন হতো। তা এখন বন্ধ হয়েছে। আর সেই কারণেই সারা বিশ্বে ভারতের পতাকা উড়ছে। ১৩০ কোটির ভারত এখন একসাথে সকলের স্বপ্ন পূরণ করে। তাই দেশের উন্নয়নের জন্য পরিবারবাদ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই জারি রাখতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ এবং দেশের সংস্থাকে বাঁচাতে পরিবারবাদকে নষ্ট করতে হবে। তিনি এও স্পষ্ট করেন, “পরিবারবাদ বলতে লোকে ভাবে আমি রাজনীতির কথা বলি, কিন্তু তা নয়। পরিবাদের রাজনীতির সেই কালো ছায়া ভারতের অনেক সংস্থায় পড়েছে। এর জন্য দেশের অভিজ্ঞতা নষ্ট হচ্ছে। এই পরিবারবাদ থেকে সব সংস্থাকেই ঘৃণা প্রদর্শন করতে হবে। উজ্জল ভবিষ্যতের জন্য এটা অত্যন্ত জরুরী।”

তিনি বলেন, “ভারতের মতো দেশে যেখানে মানুষ দরিদ্রের সঙ্গে লড়ছে, একদিকে কিছু মানুষ যেখানে থাকার জায়গা পাচ্ছে না, অন্যদিকে সেখানে এমন লোক আছে যাদের চুরির মাল রাখার জায়গা নেই। কেউ কেউ ব্যাংক লুট করে পালিয়েছে। আমরা তাদের সম্পদ ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি। দুর্নীতি দেশটাকে শেষ করছে। দুর্নীতি করলে কেউ বাঁচতে পারবে না। আমরা এর বিরুদ্ধে লড়বো। আপনারা আমাকে সাহায্য করুন আপনাদের সাহায্য পেলে আমি এর মোকাবিলা করতে পারবো।”

অভিযোগের সুরে মোদী বলেন, কেউ কেউ এতটা নির্লজ্জ হয়ে যান দোষ প্রমাণিত হলেও তাদের নাম জপ করেন। দুর্নীতি ও দুর্নীতিবাজদের সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারতে রোজগারের ক্ষেত্র ক্রমশ খুলে যাচ্ছে। যুবদের জন্য বেসরকারি ক্ষেত্রকে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি। সেখানে কাজের সুযোগ তৈরি হবে। ভারত ক্রমশ ম্যানুফ্যাকচারিং হাব হিসেবে প্রকাশিত ও উন্নত হচ্ছে।

তিনি বলেন, “লালবাহাদুর শাস্ত্রী জয় জওয়ান জয় কিষান এর মন্ত্র দিয়েছিলেন। অটল বিহারী বাজপেয়ী এর সাথে জয় জওয়ান জয় কিষান জয় বিজ্ঞান যোগ করেছিলেন। আর এবার অমৃত মহোৎসবের অমৃত কালে তাতে যোগ হবে জয় অনুসন্ধান। তাই আজ জয় জওয়ান জয় কিষান জয় বিজ্ঞান অনুসন্ধান, আত্মনির্ভর ভারত আমাদের শপথ। আত্মনির্ভর ভারতের দিকেই আমাদের এগোতে হবে। আমাদের স্বদেশিকতায় আমাদের গর্ব করতে হবে।” তিনি বলেন, “আত্মনির্ভর ভারত কোনও প্রকল্প নয় এটা সমাজের গণ আন্দোলন।”

স্বাধীনতার ৭৫ বছর পর লালকেল্লায় জাতীয় পতাকাকে সম্মান জানিয়েছেন মেড ইন ইন্ডিয়া তোপ।

নরেন্দ্র মোদী বলেন,” আমরা সবকা সাথ সবকা বিকাশের মন্ত্র নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিলাম। কিন্তু দেশবাসীর তরফে সেটা “সবকা বিশ্বাস” করে তাকে আরো রাঙিয়ে তুলেছে। তার দাবি, কয়েক দশক পর ১৩০ কোটির দেশবাসী স্থায়ী সরকারের শক্তি দেখেছে। রাজনৈতিক স্থিরতার গুরুত্ব বুঝেছে। এই নীতির সামর্থ্য বুঝেছে। তাই অনেক বাধা সত্বেও দেশ এগিয়ে চলেছে। খাদ্যসংকট এসেছে, সন্ত্রাসবাদি হামলা হয়েছে কিন্তু সমস্ত সংকট কাটিয়ে দেশ এগিয়ে চলেছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here