“নীতি পাল্টে কাজ করায় টাকা আটকে,” ১০০ দিনের কাজ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় পঞ্চায়েত প্রতিমন্ত্রী কপিল মোরেশ্বর

জয় লাহা, দুর্গাপুর, ২ নভেম্বর: ‘সারা দেশে গ্রামে গ্রামে মোদীজির নেতৃত্বে কেন্দ্র সরকারের উন্নয়ন পৌঁছেছে। কেন্দ্র সরকার শ্রমিকদের মজুরি আটকায় না। পশ্চিমবঙ্গে কেন্দ্রের ১০০ দিনের নীতি বদলে নিজস্ব নীতি তৈরী করে কাজ করেছে। তার ফলে জটিলতা তৈরী হয়েছে। টাকা আটকে রয়েছে। তদন্ত চলছে। আগামী ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনে ৩০৩ -এর বেশি আসন পেয়ে সরকার গঠন করবে।’ শুক্রবার দুদিনের রাজ্য সফরে এসে এমনই দাবি করলেন কেন্দ্রীয় পঞ্চায়েত প্রতিমন্ত্রী কপিল মোরেশ্বর পাটিল।

প্রসঙ্গত, সামনে কড়া নাড়ছে রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন। তারপর ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচন। আর লোকসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে আসরে নেমেছে গেরুয়া ব্রিগেড। লোকসভা ভিত্তিক একজন করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে প্রবাসে পাঠানো শুরু করেছে। শুক্রবার
দুদিনের জন্য আসানসোল সফরে আসেন কেন্দ্রীয় পঞ্চায়েত প্রতিমন্ত্রী কপিল মোরেশ্বর পাটিল। শুক্রবার তিনি অন্ডাল বিমানবন্দরে আসেন। এই সফরে তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসাবে কোনও সরকারি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন না। তিনি দলীয় সাংগঠনিক কাজে কর্মীসভা এবং জনসভায় যেমন যোগ দেবেন, তেমনই ভারতীয় জনতা পার্টির পশ্চিম বর্ধমান জেলার কার্যকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করবেন।কেন্দ্রীয় পঞ্চায়েত দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী কপিল মোরেশ্বর পাটিল আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নিবিড় জনসংযোগের জন্য দেন্দুয়া বাজারেও যাবেন এবং কল্যানেশ্বরী মন্দিরে পুজোও দেবেন বলে জানা গেছে।

এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, “১০০ দিনের কাজের টাকা না পাওয়ার প্রশ্ন শেষ হয় না।সরকার শ্রমিকদের মজুরি ইচ্ছাকৃত আটকায় না। এক তৃণমূল সাংসদ অভিযোগ করেছিল। তার ভিত্তিতে তদন্ত চলছে। পশ্চিমবঙ্গে কেন্দ্রের ১০০ দিনের নীতি বদলে নিজস্ব নীতি তৈরী করে কাজ করেছে। তার ফলে জটিলতা তৈরী হয়েছে। টাকা আটকে রয়েছে। তদন্ত চলছে। রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্রে যেভাবে দুর্নীতি হয়েছে। রাজ্য গ্রাম উন্নয়ন ও পঞ্চায়েতে বিভাগে সেরকম দুর্নীতি হলে আইনানুগ ব্যাবস্থা হবে। রিপোর্ট চাওয়া হবে পঞ্চায়েতের বিভিন্ন প্রকল্পের। রিপোর্ট সন্তোষজনক না হলে আইনি ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।” তিনি আরও বলেন,
“গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যের হিংসার ঘটনা স্মরণ করলে প্রশ্ন জাগে, পশ্চিমবঙ্গের মানুষ আদৌ সুরক্ষিত রয়েছে? ভোটদান মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার। আমার পূর্ণ বিশ্বাস জনতা গণতান্ত্রিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হলে, তার জবাব গণতান্ত্রিক উপায়ে দেবে।” তিনি আরও বলেন,” সারা দেশে গ্রামে গ্রামে মোদীজির নেতৃত্ব কেন্দ্র সরকারের উন্নয়ন পৌঁছেছে। আগামী ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনে ৩০৩ -এর বেশী আসন পেয়ে সরকার গঠন করবে বিজেপি।” তবে পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে কেন্দ্রীয় পঞ্চায়েত মন্ত্রীর রাজ্যে সফর যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

 

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here