রেকর্ড রোগীবৃদ্ধি, আরও কমল সুস্থতার হার! আক্রান্ত স্বাস্থ্য অধিকর্তাও, আক্রান্ত আরও ৩৫২৬, মৃত ৬৩, সুস্থ ২৯৭০

রাজেন রায়, কলকাতা, ৮ অক্টোবর: ফের সংক্রমণের নয়া রেকর্ড! তার জেরে হাসপাতালে রোগীবৃদ্ধিরও রেকর্ড রাজ্যের। আর তার ফলে আরও অনেকটাই কমল সুস্থতার হার। একই সঙ্গে বিশেষ সূত্রে খবর, করোনা আক্রান্ত হয়েছেন স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তীও। কিছুদিন অসুস্থ বোধ হওয়ার পর বৃহস্পতিবার বিকেলে তার অ্যান্টিজেন রিপোর্ট টেস্ট করালে করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

ফের রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় নতুন সংক্রমণের হদিশ রেকর্ড সংখ্যক ৩৫২৬ জনের, মৃত্যু ৬৩ জনের এবং সুস্থ হয়েছেন ২৯৭০ জন। গতকালের তুলনায় সংক্রমণ বেড়েছে ৭১ জনের, মৃত্যু বেড়েছে ৫ জনের এবং সুস্থদের সংখ্যা কমেছে ৫৪ জনের। ফলে সুস্থতার হার কমে দাঁড়িয়েছে ৮৭.৯৩ শতাংশে।

বৃহস্পতিবারের বুলেটিন অনুযায়ী, ২৪ ঘন্টায় ৩৫২৬ জন নতুন আক্রান্তে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ২৮৪০৩০ জন। এদিন আরও ৬৩ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ৫৪৩৯ জনের। ২৪ ঘন্টায় আরও ২৯৭০ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ২৪৯৭৩৭ জন।

এদিনও অন্যান্য জেলার সঙ্গে উত্তর ২৪ পরগনাতে ৬৭১ জন, কলকাতায় ৬৪৪ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২৮২ জন, হাওড়ায় ১৬২ জন, পশ্চিম মেদিনীপুর ও নদিয়ায় ১৩২ জন করে, পূর্ব মেদিনীপুরে ১২২ জন, মুর্শিদাবাদে ১০৫ জন, হুগলিতে ৯৯ জন, পুরুলিয়ায় ৯২ জন, জন সুস্থ হয়েছেন। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ২৮৮৫৪ জন। এ দিন হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বেড়ে গিয়েছে ৪৯৩ জন, যা সাম্প্রতিক কালের মধ্যে সর্বোচ্চ।

বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৮৮টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্ট করা হল ৩৫৬৫৬০২ জনের। যার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ৪২৪৪১ জনের। রাজ্যের ৯২টি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল, ৩৭টি সরকারি এবং ৫৫টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১২৭১৫টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ১২৪৩ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে ৭৯০টি। তার মধ্যে মাত্র ৩৮.০৪ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ২৪১৫ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১০৭৭৯২ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৮০৪২৭ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৬৬৭৮৯৪ জনকে। রাজ্যের ২০০টি সেফ হোমে ১১৫০৭টি বেড রয়েছে এবং তাতে ১৪০৮ জন রোগী রয়েছেন।

এছাড়া এদিনের মৃত্যু হিসেবে বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, এদিন রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬৩ জনের। তার মধ্যে উত্তর ২৪ পরগনায় ১৬ জন, কলকাতায় ১১ জনের, হাওড়ায় ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া পশ্চিম মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণায় ৫ জন করে, জলপাইগুড়ি, নদিয়া, পূর্ব মেদিনীপুর ও হুগলিতে ৩ জন করে, আলিপুরদুয়ার ও পুরুলিয়ায় ২ জন করে এবং কোচবিহার, মুর্শিদাবাদ, পূর্ব বর্ধমান ও পশ্চিম বর্ধমানে ১ জন করে মোট আরও ৩০ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

এদিনও, রাজ্যে সংক্রমণ বেড়েছে রেকর্ডসংখ্যক পরিমাণে। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে কলকাতায় ৭৬৫ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ৭১৭ জন, হাওড়ায় ২২৫ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২২৪ জন, হুগলিতে ১৮৫ জন, পূর্ব মেদিনীপুরে ১২২ জন, পশ্চিম মেদিনীপুরে ১০৩ জন, পশ্চিম বর্ধমানে ৯৮ জনের উল্লেখযোগ্য হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিনও সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের সব জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here