দুই শিশুকে ফিরে পেতে প্ল্যাকার্ড হাতে জেলা শাসকের অফিসের সামনে ধর্না অসহায় মা’য়ের, সমাধানের আশ্বাস বালুরঘাট থানার আইসির

পিন্টু কুন্ডু, বালুরঘাট, ২৮ ডিসেম্বর: স্বামীর অত্যাচারে দীর্ঘদিন ঘর ছাড়া অসহায় মহিলা। নিজের দুই শিশু পুত্র ও কন্যাকে ফিরে পাবার দাবিতে জেলা শাসকের অফিসের সামনে ধর্নায় বসলেন নির্যাতিতা। সোমবার বালুরঘাটে জেলা শাসকের অফিসের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে বসে পড়েন বুনিয়াদপুরের বাসিন্দা শিল্পী ব্যানার্জি সরকার। মেয়ের সাথে এদিন সঙ্গ দিতে মা দীপিকা ব্যানার্জিও বসেন ধর্নায়। এদিন সকালে এমন ঘটনাকে ঘিরে তুমুল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে জেলা শাসকের অফিস চত্বরে। ঘটনার খবর পেয়ে এলাকায় ছুটে যান বালুরঘাট থানার আইসি অরিন্দম মুখোপাধ্যায়। কান্নায় ভেঙে পড়া অসহায় মহিলাকে আশ্বস্ত করবার পাশাপাশি তাকে থানায় ডেকে নিয়ে গিয়ে পুরো ঘটনা শোনেন আইসি নিজে।

জানাগেছে, ২০০৯ সালে বুনিয়াদপুরের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা পেশায় প্রাথমিক স্কুল শিক্ষক বিনয় কুমার ব্যানার্জির মেয়ে শিল্পীর সাথে বিয়ে হয় ঠিকাদার সৌমক সরকারের। যার বাড়িও বুনিয়াদপুরের দক্ষিণ পাড়াতে। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকে স্ত্রীর উপর নানা ভাবে অত্যাচার করত সৌমক সহ তার শ্বশুড় বাড়ির লোকেরা। দীর্ঘদিন স্বামীর অত্যাচার সহ্য করে থাকলেও বেশকিছুদিন আগে দুই শিশু কন্যাকে রেখে তাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয় শ্বশুড় বাড়ির লোকেরা বলে অভিযোগ। নানা শারীরিক হেনস্থার কারণে সুস্থ হবার জন্য তাকে চিকিৎসা করাতে হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে পুলিশ থেকে শুরু করে সমাজকল্যাণ দপ্তর এবং আদালতে দরবার করেও কোনও ফল পাননি ওই মহিলা বলে অভিযোগ। এখানেই শেষ নয়, বাবার বাড়িতে গিয়েও ওই মহিলাকে প্রাণ নাশের হুমকি দেওয়া হত বলেও অভিযোগ করেছেন ওই মহিলা। যার ফলে জীবন বাঁচাতে অসুস্থ বাবা, মা’ ও বোনকে নিয়ে বালুরঘাটের নারায়ণপুরে একটি ভাড়া বাড়িতে থাকেন অসহায় ওই মহিলা শিল্পী ব্যানার্জি সরকার। মহিলার আরও অভিযোগ, এক সরকারি আইনজীবীর মদতেই এসব করছে অভিযুক্ত স্বামী সৌম্যক। যার বিরুদ্ধে বেশকিছু প্রমাণও রয়েছে তার হাতে বলে দাবি ওই মহিলার। আর যে কারণেই তাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি।প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও সুবিচার না পাওয়ায় একপ্রকার বাধ্য হয়ে এদিন জেলা শাসকের অফিসের সামনে ধর্নায় বসেছেন ওই মহিলা।

শিল্পী ব্যানার্জি সরকার জানিয়েছেন, বাড়ি তালা বন্ধ করে পালিয়েছে তার স্বামী। তার ছোট ছেলে ও কোলের মেয়ে এখন কোথায় আছে তার কোনও খবর পাচ্ছেন না তিনি। কোলের দুই শিশুকে ফিরে পেতেই প্রশাসনের দরজার সামনে ধর্নায় বসেছেন।

মহিলার মা দীপিকা ব্যানার্জি জানিয়েছেন, বিয়ের পর থেকে তার মেয়ের উপর অত্যাচার করত তার স্বামী। মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছিল তাকে। বাড়িতে এসে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ায় বুনিয়াদপুরের বাড়ি ছেড়ে বালুরঘাটে ভাড়া বাড়িতে রয়েছেন। মেয়ের বিরুদ্ধে হওয়া অন্যায়ের বিচার চাইতেই এদিন এমন পথ অবলম্বন করেছেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here