লকডাউনে আটকে থাকা ৬৩ জন মতুয়া ভক্তকে বাড়ি ফেরালেন বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১৭ মে: লকডাউনের ফলে দীর্ঘ তিন মাস ধরে আটকে থাকা মতুয়া ভক্তদের বাড়ি ফেরালেন উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। আটকে থাকা ভক্তদের গত তিন মাস ধরে খাওয়ার ব্যবস্থা করেছেন শান্তনুবাবু। বারবার রাজ্যাসরকারের কাছে তাদের ফেরানোর জন্য আবেদন করলেও ডিএম থেকে এসডিও কেউ কোনও সাহায্য করেননি বলে শান্তনু ঠাকুরের অভিযোগ। একদিন বিডিও অফিস থেকে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করালেও সেই বিডিও দফতরের আধিকারিককে বদলি করে দেওয়া হয় এমনই অভিযোগ সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের। শনিবার ঠাকুরনগরের ঠাকুর বাড়ি থেকে তিনটি বাসে মোট ৬৩ জন ভক্তকে রাজস্থানে পাঠানো হয়।

স্থানীয় সূত্রের খবর, ঠাকুরবাড়িতে বারণী মেলায় এসে লকডাউনে আটকে পড়েছিল বিভিন্ন রাজ্যের ৬৩ জন মানুষ। যাদেরকে ফেরানো নিয়ে ইতিপূর্বে ঠাকুরবাড়ির দুইপক্ষই ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছিল। কিন্তু ক্রমশ্য লকডাউন বেড়ে চলায় তা আর হয়ে ওঠেনি। সম্প্রতি কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর বিষয়ে উথাল-পাথাল কাটিয়ে ওঠার পর শিথিল হয়েছে সমস্ত বিধি নিষেধ। মূলত এরপরই শনিবার সকালে ঠাকুরবাড়ির সংঘাধিপতি শান্তনু ঠাকুরের তৎপরতায় তিনটে বাসে করে আটকে থাকা মোট ৬৩ জন মতুয়া ভক্তকে রাজস্থানে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হল। আর তাই নিয়েই ঠাকুরবাড়িতে শুরু হয়েছে চাপানউতোর। কে মতুয়াভক্তদের ফেরাতে উদ্যোগী হয়েছে তা নিয়েই বিজেপি-তৃণমূল তরজা শুরু হয়েছে।

এদিন তাদের গাড়িতে তুলে দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন গাইঘাটা পুলিশ প্রশাসন ও বনগাঁ লোকসভার বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। শান্তনু ঠাকুর বলেন, “লকডাউনের মধ্যে রাজস্থান থেকে আসা ৬৩ জন মতুয়া ভক্ত ঠাকুরবাড়িতে আটকে ছিলেন। বারবার রাজ্য সরকারকে জানালেও রাজ্য সরকার তাদের বাড়ি ফেরানো বা খাওয়া-দাওয়ার কোনও ব্যবস্থা করেনি। প্রায় দুমাস পর্যন্ত আমি ভক্তদের থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করেছি। পরবর্তীতে রাজস্থান সরকারকে ঠাকুরবাড়িতে আটকে থাকা মতুয়াদের বাড়ি ফেরানোর জন্য বারবার অনুরোধ করেন তিনি। তাঁর অনুরোধে সাড়া দিয়ে রাজস্থান সরকার মতুয়াদের বাড়ি ফেরাতে উদ্যোগী হয়েছেন।

বনগাঁর প্রাক্তন সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর বলেন, “মতুয়া ভক্তরা ঠাকুরবাড়িতে এসেছে ঠাকুরবাড়ির কর্তব্য তাদের খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করা। ঠাকুরবাড়ি থেকে যতটা পেরেছি আমরা তাদের জন্য ব্যবস্থা করেছি। আমরা রাজ্য সরকারকে জানায়নি যে আমরা তাদের খেতে দিতে পারছি না। আজ রাজ্য সরকার বিডিও ও এসডিওর মাধ্যমে ৬৩ জনকে বাড়ি ফিরিয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here