তৃণমূলের কর্মিসভায় ডাক পেলেন না একাধিক পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য, অন্ডালে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে প্রকাশ্যে ক্ষোভ 

জয় লাহা, দুর্গাপুর, ১৫ সেপ্টম্বর : ফের শাসক শিবিরে গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে। দলের কর্মিসভায় ডাক পেলেন না দলেরই একাধিক পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য। ডাক না পেয়ে দলের ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধে বিমাতৃসুলভ আচরণের অভিযোগ তুলে ধরলেন জেলা সভাপতির কাছে। বুধবার ঘটনাকে ঘিরে চরম উত্তেজনা ছড়াল অন্ডালের খান্দরায়। 

ঘটনায় জানা গেছে,  বুধবার অন্ডাল ব্লকের খান্দরা কমিউনিটি হলে তৃণমূলের কর্মিসভা ছিল। এদিন ওই কর্মিসভায় উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের পশ্চিম বর্ধমান জেলা নেতৃত্ব। আর ওই সভা ঘিরে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে আসে। দলের একাংশের অভিযোগ, দলের ব্লক সভাপতি বিমাতৃসুলভ আচরণ করছে। একাধিক পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যকে ডাকা হয়নি। এদিন দলের জেলা সভাপতি তথা বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়ের গাড়ি পৌঁছাতেই একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন বিক্ষুব্ধরা।

তৃণমূলের অন্ডালের খান্দরা অঞ্চল সভাপতি তথা পঞ্চায়েত সদস্য আশীষ ভট্টাচার্য্য, তৃণমূল কংগ্রেসের সমিতির নেত্রী সন্ধ্যা ধীবর, রীতাদেবী সিং প্রমুখ জানান, জন্মলগ্ন থেকে দলটা করছি। অনেক লড়াই করে এলাকায় সংগঠন তৈরী করেছি। আজ খান্দরা দলীয় কার্যালয়ের ঢিল ছোড়া দুরত্বে কর্মিসভা হচ্ছে। অথচ দলের ১৪ জন  পঞ্চায়েত সদস্য ও ৩ জন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যকে ডাকা হল না। তাই আমরা বিষয়টি দলের জেলা সভাপতির কাছে জানানোর জন্য দলীয় কার্যালয়ে জমায়েত হয়েছি।”

যদিও তৃণমূলের পশ্চিম বর্ধমান জেলা সভাপতি  বিধান উপাধ্যায় বলেন, “এটা কোনও ক্ষোভ নয়। দলটাকে ভালোবাসে তাই আবদার করেছে। তৃণমূল দলে সবাইকে নিয়ে থাকতে হবে। যদি কেউ মনে করেন একা থাকবেন, তবে দল তার সঙ্গে নেই। বিষয়টি দলীয়স্তরে দেখা হবে।” 

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here