বাংলাদেশে ভারতীয় লরি চালকের রহস্য মৃত্যু নিয়ে ধোয়াশায় পরিবার, তদন্তে হিলি থানার পুলিশ

পিন্টু কুন্ডু, বালুরঘাট, ৫ অক্টোবর: বাংলাদেশে গিয়ে ভারতীয় এক লরি চালকের রহস্য মৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য। মৃত্যুর প্রকৃত কারণ নিয়ে ধোঁয়াশায় মৃতের পরিবারের লোকেরাও। ময়নাতদন্তের রিপোর্টের অপেক্ষায় হিলি এক্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ওই লরিচালকের নাম প্রসেনজিৎ বসু (২৭)। বাড়ি দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কুমারগঞ্জ ব্লকের সাফানগর গ্রাম পঞ্চায়েতের আজাদপুর এলাকায়। মালবোঝাই লরি ওপারে নিয়ে যাবার কয়েকদিনের মাথায় ওই চালকের মৃত্যুর খবর আসে তার পরিবারের কাছে। যার পরেই পুলিশ ও বিএসএফের তৎপরতায় মৃতদেহ এপারে এনে ময়না তদন্তে পাঠায় হিলি থানার পুলিশ।

পরিবার সূত্রের খবর, সেপ্টেম্বর মাসের ২৭ তারিখে হিলি চেকপোস্ট দিয়ে লরি বোঝাই মাল নিয়ে বাংলাদেশে গিয়েছিল প্রসেনজিৎ। যার পরেই ৩ অক্টোবর রবিবার সেখান থেকে ওই চালকের মৃত্যুর খবর জানানো হয়। আর যে খবর পেতেই কিছুটা আঁতকে ওঠেন মৃত প্রসেনজিতের পরিবারের লোকেরা। এরপরেই হিলি এক্সপোর্টের তৎপরতায় ভারত-বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীদের হস্তক্ষেপে এপারে নিয়ে আসা হয় মৃত লরি চালকের দেহ। মঙ্গলবার হিলি পুলিশ ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করা হয় ওই মৃত লরি চালকের। সুস্থ প্রসেনজিৎ বাংলাদেশে গিয়ে আচমকা কিভাবে মারা গেল তা নিয়েই প্রশ্ন তৈরি হয়েছে মৃতের পরিবারের মধ্যে।

মৃতের দাদা চিরঞ্জিত বসু জানিয়েছেন, তাকে ফোন করে জানানো হয় তার ভাই মারা গিয়েছে। কিভাবে সুস্থ ভাই মারা গেল সেই প্রশ্ন তাদের মধ্যেও ঘুরপাক খাচ্ছে। দু’দেশের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলেই প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

হিলি এক্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক জানিয়েছেন, পেটে ব্যাথা নিয়ে প্রসেনজিৎ বাংলাদেশের হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। তারপর বাড়ি ফেরার জন্য উদ্যোগও নিয়েছিল সে। কিন্তু তার মাঝে হঠাৎ তার মৃত্যু হয়েছে। এখন ময়নাতদন্তের রিপোর্টের দিকেই তারা তাকিয়ে আছেন। প্রকৃত কারণ জানার পর উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here