তুফানগঞ্জের নাককাটিগছ গ্রাম পঞ্চায়েতের পুনর্দখলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা, এলাকায় অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

তুফানগঞ্জের নাককাটিগছ গ্রাম পঞ্চায়েতের পুনর্দখলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা, এলাকায় অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

আমাদের ভারত, কোচবিহার, ১৪ আগস্ট: তুফানগঞ্জের নাককাটিগছ গ্রাম পঞ্চায়েতের পুর্নদখলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা। এলাকার একটি ক্লাব ভাঙ্গচুরের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী।

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হবার পরে, জেলার বাকি বেশ কিছু গ্রাম পঞ্চায়েত গুলির মত তুফানগঞ্জ ১ নম্বর ব্লকের নাককাটিগছ গ্রাম পঞ্চায়েতের ২৪ জন সদস্যের মধ্যে ২২ জন সদস্যই বিজেপিতে যোগদান করে। স্বাভাবিক ভাবেই এই গ্রাম পঞ্চায়েত বিজপির দখলে আসে। এই ঘটনার পর থেকেই গ্রাম পঞ্চায়েতে আসেননি তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান শচীন বর্মন। এদিন তৃণমূল কংগ্রেসের স্থানীয় নেতা পিন্টু হোসেনের নেতৃত্বে এই গ্রাম পঞ্চায়েত পুনর্দখলের দাবি করল তৃণমূল। আজ সকালে বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস এলাকায় মিছিল করে গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসে ঢোকে।  তাঁদের সঙ্গে প্রধান সহ ১৭ জন সদস্য রয়েছে বলে দাবি করে তৃণমূল। পাশাপাশি এই গ্রাম পঞ্চায়েত পুনর্দখল করার দাবি করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন গ্রাম পঞ্চায়েত পুনর্দখলকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। মোটা বাঁশ নিয়ে পুলিশের উপস্থিতিতেই মিছিল করে তৃণমূল। এমনকি পুলিশের উপস্থিতিতেই স্থানীয় একটি ক্লাবে ভাঙ্গচুর চালায় তৃণমূলের পক্ষ থেকে।

ঘটনার নিন্দা করা হয়েছে বিজেপির পক্ষ থেকে, তুফানগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপির সংযোজক উৎপল দাস অভিযোগ করেন, জোর করে ভয় দেখিয়ে বিজেপিতে আসা পঞ্চায়েত সদস্যদের আবার তাঁদের দলে নিয়েছে তৃণমূল। তাঁর দাবি যে ২২ জন সদস্য বিজেপিতে যোগদান করেছিল তাঁরা বিজেপিতেই আছেন। তিনি এলাকায় অশান্তি ও সস্ত্রাস তৈরির অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি পুলিশের ভূমিকার সমালোচনা করেন তিনি। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 + seven =