জঙ্গিযোগের অভিযোগে দেশজুড়ে পিএফআইয়ের বহু অফিসে তল্লাশি এনআইএর, গ্রেপ্তার ১০০-র বেশি

আমাদের ভারত, ২৩ সেপ্টেম্বর:
মুসলিম মৌলবাদী সংগঠন পিএফআই নেতা শেখ মুক্তারের অফিসে তল্লাশি চালায় এন আইএ। কলকাতায় তিলজলার অফিসে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই তল্লাশি চলে। এর আগে ওই অফিসে ইডি তল্লাশি চালিয়ে ছিল। ওই অফিস থেকে ঠিক কেমন ধরনের জঙ্গি কার্যকলাপ হতো তা খতিয়ে দেখছেন তারা।

২০২০ সালে বেঙ্গালুরু’র সাম্প্রদায়িক হিংসার নেপথ্যের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ পি এফ আইয়ের বিরুদ্ধে। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে উত্তরপ্রদেশের হিংসায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। ২০২১ সালে অসমে একটি উচ্ছেদ অভিযানে পুলিশের বিরুদ্ধে দখলদারদের উস্কে দিয়ে হামলা করায় হাত রয়েছে পিএফআই–এর, বলে দাবি করা হয়।

সন্ত্রাসবাদ দমনে দেশজুড়ে অভিযান চালাচ্ছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এএনআই। জঙ্গিদের অর্থ যোগান সহ একাধিক অভিযোগে এখনও পর্যন্ত মুসলিম মৌলবাদী সংগঠন পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া’র ১০০ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে তদন্তকারীরা।

কলকাতার তিলজলায় ভাড়া নিয়ে ওই সংগঠনটি যে অফিস করেছে ওই অফিস বেশ কয়েক বছর ধরে চলছে বলে দাবি স্থানীয়দের। মহম্মদ আনোয়ার নামে এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, ওই অফিসে সারা দিন দরজা বন্ধ করে কাজ হতো। মৌলভী ইমামরা আসত। সঙ্গে মাথায় টুপি পরে বেশ কিছু যুবক আসত। ওরা কি করতো আমরা জানি না। কোনওদিন ওদের নাম জিজ্ঞাসা করিনি। কারণ ওদের অফিসের দরজা সব সময় ভেতর থেকে লাগানো থাকত। তিনি আরও জানান, এই অফিসে দশটার সময় চলে আসে অফিসের কর্মীরা। তারপর সারাদিন ঘরে দরজা লাগিয়ে কাজ করে। তবে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ চলে ওখানে।

তামিলনাড়ুতে পপুলার ফ্রন্টের বেশ কয়েকটি দপ্তরে হানা দিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। অভিযান চালিয়েছে কোয়েম্বাটোর, দিন্দিগুল, ফেনিতে। চেন্নাইয়ে পিএফআইয়ের দপ্তরেও তল্লাশি চালিয়েছে ইডি। কেরালার জেলাস্তরের নেতাদের বাড়ি ও দপ্তরে তল্লাশি চালিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারীরা।

বুধবার অসমে অভিযান চালিয়ে দেশদ্রোহীতার দায়ে ৯ জন পিএফআই নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে এন আই এ। তাদের কাছ থেকেপ্রচুর ভারতবিরোধী নথি উদ্ধার হয়েছে বলে দাবি করেছে এনআইএ। তারপরেই বৃহস্পতিবার সারা ভারতজুড়ে ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (NIA) বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালাচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here