জল্পনা ভুল! লকডাউনের সম্ভাবনা নেই, কঠোর বিধিনিষেধ জারি হতে পারে সংক্রমিত এলাকায়

আমাদের ভারত, ১৫ জুন: আবারও লক ডাউন হতে পারে। এমনই জল্পনা ছড়াচ্ছে দেশজুড়ে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক ঘোষণা হতেই ফের লকডাউন হতে পারে সেই নতুন জল্পনার ম্যাসেজ সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোরাফেরা করছে। যদিও কেন্দ্রের দাবি নতুন লকডাউনের কোনো সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। বরং সংক্রমিত এলাকায় কড়া নিয়ম পালনের উপর জোর দেওয়া হবে। তবে শহর বা রাজ্যে লকডাউনের কোনো চিন্তাভাবনা নেই এক্ষুনি।

প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো স্পষ্ট জানিয়েছে একটি বাংলা সংবাদমাধ্যমে ১৮ ই জুন ফের লকডাউন জারি করা হবে বলে দাবি করা হয়েছিল, তা ভুয়ো। একইসঙ্গে দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হবে একমাসেরলক ডাউন করার জন্য সেই জল্পনাও খারিজ করেছে কেন্দ্র।

সরকারের বক্তব্য অর্থনীতিকে সচল করতে সদ্য সদ্য একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।ফলে এখন নতুন করে সারাদেশের লকডাউন করা কোনভাবেই যুক্তিযুক্ত নয়। তবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীদের হতে চলা বৈঠক নিয়েই নতুন লকডাউনের জল্পনা তৈরি হয়েছিল।

আনলক ওয়ান পর্বে প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকে আলোচনার মূল বিষয় করোনা ও আর্থিক পরিস্থিতি। এছাড়াও দিল্লির পরিস্থিতি নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকের ডেকেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। আগামীকালের এই বৈঠকে দিল্লির করোনা পরিস্থিতিই অন্যতম বিষয়।

অর্থনীতিবিদদের মতে অর্থনীতির চাকা গতি আনতে একাধিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।ছোট শিল্পের জন্য ঋণের ঘোষণা ও বন্টন শুরু হয়েছ। অফিস কাছাড়ি খুলেছে, শপিং-মল, দোকান খুলেছে। অল্প পরিমাণে হলেও কেনাবেচা শুরু হয়েছে। ফলে এখন নতুন করে লক-ডাউন ঘোষণা হলে অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড় করানো অসম্ভব হয়ে যাবে।

সরকারি সূত্রে খবর গোটা দেশে নতুন করে লক ডাউনের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কেবলমাত্র সংক্রমিত অঞ্চলগুলিতে কড়া নিয়ম বিধি জারি করা হতে পারে।

সরকারের স্পষ্ট বক্তব্য লকডাউনের পরিকল্পনা তাদের বিবেচনায় নেই। যদিও স্বাস্থ্যকর্মীদের একটি অংশ সংক্রমণ আটকাতে লকডাউনকেই একমাত্র উপায় বলে নীতিগতভাবে মনে করছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের কাছে এখন নতুন মাথাব্যথার কারণ, রোজ নতুন নতুন এলাকায় সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে। দেশের চারটি মেট্রো শহর ছাড়াও পুণে, আমেদাবাদ, হায়দ্রাবাদের মত বড় শহর গুলি সংক্রমণ ছড়িয়েছে। যা নিয়ে দুশ্চিন্তা বেড়েছে সরকারের। ছোট ছোট রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলেও সংক্রমণের বিস্তার ঘটছে। দীর্ঘদিন করোনা মুক্ত থাকার পরেও সিকিমে প্রথম করোনা আক্রান্তের খোঁজ মেলে ২৪ মে এখন সেই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫০।
তবে সরকার স্পষ্ট জানিয়েছে, লকডাউনের কোনো সম্ভাবনা এখন নেই। শহরে যেখানে যেখানে সংক্রমনের হার বেশি সেই সব এলাকায় চিহ্নিত করে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হতে পারে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here