পুলিশকে কেউ মানছে না, যার কোমরে দড়ি বেঁধে ঘোরানো উচিত তার সঙ্গে বসেই চা খায় তারা: দিলীপ ঘোষ

আমাদের ভারত, মালদা, ১০ আগস্ট: রাজ্য সরকার পুলিশের আত্মবিশ্বাস নষ্ট করে দিয়েছে, তাই তারা আর সেভাবে কাজ করছে না। কোন অপরাধ হলে তারা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। তাই রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে, লুটপাট, খুন খুনখারাপি বেড়ে গেছে। মানুষ আর পুলিশকে ভয় করে না। এই অভিযোগ করলেন, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আজ মালদায় তিনি এই অভিযোগ করেন।

গতকাল রাতে মালদায় এসেছেন দিলীপ ঘোষ। আজ উত্তর দিনাজপুর যাওয়ার আগে প্রাতঃভ্রমণ করেন। এরপর একটি চায়ের দোকানে বসে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথাবার্তা বলেন। সেখানেই সাংবাদিকদের তিনি বলেন, রাজ্য সরকার পুলিশকে অনৈতিকভাবে ব্যবহার করে তাদের মনোবল ভেঙে দিয়েছে। তাঁর অভিযোগ, পুলিশকে তাদের কাজ থেকে বাদ দিয়ে অনৈতিক কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। শাসকদলের যখন হেরে যাওয়ার ভয় থাকে তখনই তারা এরকম কাজ করে। তিনি বলেন, বিরোধীদের ওপর অত্যাচার করে করা হচ্ছে। রাজ্যে খুন খারাপি, লুটপাট বেড়ে যাচ্ছে। এর কারণ কারো বিরুদ্ধে পুলিশ ব্যবস্থা নিচ্ছে না। অপরাধীরা নির্ভয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে।
এর পরেই তিনি পুলিশের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ তোলেন। তিনি বলেন, যে অপরাধীকে কোমরে দড়ি বেঁধে ঘোরানো উচিত বা থানায় ঢোকানো উচিত তার সঙ্গে বসে চা খায় পুলিশ। এটা দেখার পরে পুলিশের প্রতি আর মানুষের আস্থা নেই। তাদের আর কেউ ভয় করে না। পুলিশের এই অবস্থার জন্য তিনি রাজ্য সরকারকেই দায়ী করেছেন। দিলীপ ঘোষ বলেন, পুলিশকে অনৈতিক কাজে ব্যবহার করে তাদের আত্মবিশ্বাস নষ্ট করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। পুলিশকে আবার নিজের মহিমায় ফেরত আসতে হবে তবেই রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা ঠিক হবে।

তাঁর অভিযোগ, রাজ্যের সবকিছু ভেঙে পড়েছে। শিক্ষা, শিল্প, মানুষের সুরক্ষা কোনটাই নেই। মানুষ সেটা উপলব্ধি করছে, তাই মানুষ চাইছে পরিবর্তন হোক। আর সেটা বিজেপির হাত দিয়ে হোক।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here