কলকাতা সঙ্গে সংক্রমণের শীর্ষে উত্তর ২৪ পরগনাও! রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ১৬৯০, মৃত ২৩, সুস্থ ৭৩৫

রাজেন রায়, কলকাতা, ১৬ জুলাই: এদিন ফের সংক্রমণের রেকর্ড ভেঙে রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় নতুন সংক্রমণের হদিশ মিলেছে ১৬৯০ জনের। এর মধ্যে কলকাতায় সংক্রমণ ৪৯৬ জন এবং উত্তর ২৪ পরগনায় সংক্রমণ রেকর্ড ৪০৩ জনের। এদিনও রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের, যার মধ্যে ১২ জন কলকাতারই, ৭ জন উত্তর ২৪ পরগনার। ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৭৩৫ জন।

২৪ ঘন্টায় ১৬৯০ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩৬১১৭ জনে। আরও ২০ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ১০২৩ জনের। এদিকে ২৪ ঘন্টায় আরও ৭৩৫ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ২১৪১৫ জন। এর মধ্যে কলকাতাতেই এদিন ৪৯৬ জন সংক্রমণে মোট সংক্রমণ ১১৪৭১ জনের। মৃত ১০০০ জনের মধ্যে ৫৩৭ জন কলকাতারই। এদিনও রেকর্ড ৪০৩ জন সংক্রমণে উত্তর ২৪ পরগনায় মোট সংক্রমণ ৭০৩৫ জনের। এই জেলায় এ দিন ৭ জনের মৃত্যু হওয়ায় মোট মৃত্যু ১৯৩ জনের।

এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে কলকাতাতে এদিনও ২৭৬ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ১৫২ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৬১ জন এবং হাওড়ায় ৫৫ জন সুস্থ হয়েছেন। কিন্তু বিপুল সংক্রমণের জেরে সুস্থতার হার অনেকটা কমে দাঁড়িয়েছে ৫৯.২৯ শতাংশে। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ১৩৬৭৯ জন। তার মধ্যে এদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৯৩৫ জন।

বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৫৪টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৬৬৩১০৮ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে রেকর্ড ১৩১৮০ জনের। রাজ্যের ৮০টি করোনা হাসপাতাল, ২৬টি সরকারি এবং ৫৪ টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১০৯৯২টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯৪৮ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে
৩৯৫টি। তার ৩২.৮৫ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ৪০২৭ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১০২৬০০ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ২৫৩৮০ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৩৪১১৩৯ জনকে। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ৮০টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৫৫৮ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ২৭৫৬৯৩ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে সেফ হোম ও তার বেড সংখ্যা এবং সেখানে রোগীদের সংখ্যা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, রাজ্যের ১০৬টি সেফ হোমে ৬৯০৮ টি বেড রয়েছে এবং তাতে ৩৪৯ জন রোগী রয়েছেন।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় ১২ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ৭ জন, হুগলিতে ২ জন, হাওড়া এবং দার্জিলিংয়ে ১ জন করে করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে হাওড়ায় ১৮৩ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১৪৬ জন, হুগলি ৮১ জন, দার্জিলিং ৭৮ জন, মালদায় ৬৯
জনের সংক্রমণ উল্লেখযোগ্য হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিন উত্তরবঙ্গের কালিম্পং ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের বাকি সমস্ত জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here