শুধু কমলা হ্যারিস নয়, বাইডেনের সঙ্গেও নাকি রয়েছে ভারতের যোগসূত্র

আমাদের ভারত, ৯ নভেম্বর:আমেরিকার হবু উপরাষ্ট্রপতি কমলা হ্যারিসের সাথে ভারতের যোগসূত্র রয়েছে তা আগে থেকেই স্পষ্ট ছিল। এবার শোনা যাচ্ছে হবু রাষ্ট্রপতি জো বাইডেনের সাথেও যোগ রয়েছে ভারতের। ২০১৩ সালের মুম্বাইতে এসে আমেরিকার নব নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন বলেছিলেন, “আই মে হ্যাভ রিলেটিভ ইন ইন্ডিয়া”। তার বলা সেই কথাই এখন নতুন করে আবার উঠে আসতে শুরু করেছে।

আগেই জানা গিয়েছিল আমেরিকার হবু উপরাষ্ট্রপতি কমলা হ্যারিসের সাথে ভারতের যোগসূত্র রয়েছে। কমলা হ্যারিসের মা চেন্নাই থেকে আমেরিকায় পড়াশোনা করতে গিয়েছিলেন। তার দাদু ছিলেন জহরলাল নেহেরুর অন্যতম সচিব। ফলে কমলার এই জয়তে গর্বিত ভারত। কিন্তু কমলার পর নতুন একটি খবর প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছে। শোনা যাচ্ছে যে জো বাইডেনেরো যোগ রয়েছে এদেশের সাথে।

কলকাতা মুম্বাই এবং চেন্নাই এই তিন শহরেই বাইডেনের পূর্বপুরুষরা ছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। উপরাষ্ট্রপতি থাকার সময় মুম্বাইয়ের একটি বণিক সভায় যোগ দিতে এসে, এক রোমাঞ্চকর গল্প বলেছিলেন বাইডেন। তিনি বলেছিলেন ১৯৭২ সালে ২৯ বছর বয়সে প্রথম তিনি সেনেটর হয়েছিলেন। আর সেই সময়ে মুম্বাই থেকে তিনি একটি চিঠি পান। যে চিঠি পাঠিয়েছিলেন তিনি ছিলেন বাইডেন পদবীধারী কোন এক ব্যক্তি। চিঠি পাওয়ার পর নিজেদের পূর্বপুরুষের খোঁজ নিয়েছিলেন জো বাইডেন। তিনি নাকি জানতে পেরেছিলেন তার এক পূর্বপুরুষ মুম্বাইয়ে এসেছিলেন এবং ভারতীয় এক নারীকে বিয়ে করে সেখানেই থেকে গিয়েছিলেন। তবে সে যে বাইডেনের পরবর্তী প্রজন্ম এটা নিয়ে তিনি সংশয় প্রকাশ করেছিলেন।

এরপর ২০১৫ সালে জো বাইডেন একটি বক্তৃতায় বলেছিলেন তাঁর, “গ্রেট গ্রেট গ্রেট গ্রেট গ্রেট গ্র্যান্ডফাদার জর্জ বাইডেন ওয়াজ ক্যাপটেন ইন দা ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি, হু সেটেল্ড ইন ইন্ডিয়া”। আর এখান থেকেই কৌতুহল শুরু।

এক্ষেত্রেও একটি সুন্দর গল্প বাইডেন বলেছিলেন। তিনি জানতে পেরেছেন, ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি যখন ভারতে এসেছিল তখন তার পূর্বপুরুষ জর্জ বাইডেন ভারতে এসেছিলেন এবং থেকে গিয়েছিলেন। জর্জ বাইডেন ছিলেন জাহাজের ক্যাপ্টেন। তবে সম্প্রতি টিম উইলসি নামে কিংস কলেজের এক অধ্যাপক একটি পত্রিকায় লিখেছেন জর্জ নয় বরং তার ভাই ক্রিস্টোফার ভারতে এসেছিলেন এবং তিনিই থেকেও যান। আর ক্রিস্টোফার মুম্বাই নয় চেন্নাইতে গিয়েছিলেন। পরবর্তীতে ক্রিস্টোফারের ছেলেও তৎকালীন মাদ্রাজ রেজিমেন্টের সেনা অফিসার পদে যোগ দিয়েছিলেন।

এদিকে কলকাতার একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে বাইডেন নামে এক শিক্ষক আছেন বলে জানা গেছে। তার সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কোন সম্পর্ক থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এখনো পর্যন্ত শুধু মুম্বাইতেই পাঁচজন বাইডেনকে পাওয়া গিয়েছে। কলকাতা ও চেন্নাইতেও বাইডেনের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে।গবেষকরা খতিয়ে দেখছেন তারা সকলেই এই ক্রিস্টোফারের পরিবারের কি-না।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here