রাজ্যে মৃত ১০৫ করোনা পজিটিভের মধ্যে শুধু করোনায় মৃত্যু ৩৩, নতুন আক্রান্ত ৩৭: মুখ্যসচিব

রাজেন রায়, কলকাতা, ৩০ এপ্রিল: ফের তথ্যের মোড়কে করোনা মৃত্যুর হিসেব পেশ করল নবান্ন। বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যসচিব জানান, এ পর্যন্ত রাজ্যে ১০৫ করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে, যার মধ্যে ৩৩ জনের মৃত্যুর কারণ করোনাই। বাকি ৭২ জনের মৃত্যুর কারণ করোনা কি না, তা এখনও নিশ্চিত করা হয়নি। ফলে একদিনে সর্বাধিক ১১ জনের মৃত্যু বাড়ায় ২২ থেকে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়়ে দাঁড়াল ৩৩ জনে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা আরও জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে আরও ৩৭ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ১৫ জন। ফলে এই মুহূর্তে অ্যাকটিভ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৭২। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩৯ জন।ফলে সব মিলিয়ে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের ঘটনা ৭৪৪টি।

রাজ্যে নয়া করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ৮০ শতাংশ ঘটনা ঘটেছে তিন জেলা, কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগণা এবং হাওড়ায়। এছাড়া হুগলী থেকে নয়া সংক্রমণের ঘটনা নথিভুক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকার। আজ যত জন পজিটিভ এসেছেন তার মধ্যে কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা থেকে এসেছেন বেশিরভাগ। এই তিন জেলা থেকে ৮০%। হুগলী থেকেও কয়েক জন আক্রান্ত এসেছেন। তবে এই মুহূর্তে করোনা মুক্তির হার ১৮ শতাংশ।

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী, বঙ্গে করোনা আক্রান্তের ঘটনা ৭৫৮ জন। ফলে কেন্দ্র ও রাজ্যের হিসেবে ফারাক রয়েছে ১৪ জনের। আরও জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত মোট স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে ১৬৫২৫ টি। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় টেস্ট হয়েছে ১৯০৫টি, যা আগের দিনের তুলনায় ৫০০টি বেশি।
রাজ্যে ল্যাবের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৪টি। আরও ২টো ল্যাব রেডি হচ্ছে। গত তিন দিন প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণে সিএনসিআই-তে টেস্ট হচ্ছে না। কলকাতায় ২৬৪টি কনটেনমেন্ট জোন আছে। হাওড়ায় ৭২টি এবং উত্তর ২৪ পরগনায় ৭০টি কনটেনমেন্ট জোন আছে। সরকারি কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫২৮৮ জন। হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১০ হাজার ৭৭৩ জন। রাজ্যে করোনা হাসপাতালের সংখ্যা ৬৬ থেকে বেড়ে ৬৭ হল, তার মধ্যে কলকাতাতেই করোনা হাসপাতালের সংখ্যা ৪ থেকে বেড়ে ৫ হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here