বাঙালি জাতীয়তাবাদের জাগরণের জন্য আত্মপ্রকাশ ‘ঐক্য বাংলা’র

চিন্ময় ভট্টাচার্য
আমাদের ভারত, ১৩ ফেব্রুয়ারি: অর্থনৈতিক বিকাশের হাত ধরে বাঙলির রাজনৈতিক বিকাশের লক্ষ্যে আত্মপ্রকাশ করল বাঙালির নতুন সংগঠন ‘ঐক্য বাংলা।’ বৃহস্পতিবার কলকাতা প্রেস ক্লাবে এক সাংবাদিক বৈঠক করে এই সংগঠন আত্মপ্রকাশ করল। উপস্থিত ছিলেন লেখক অনির্বাণ মুখোপাধ্যায়, সংগীতশিল্পী অমিত দাস-সহ বহু বিশিষ্ট বাঙালি লেখক-কবি-শিল্পী।

অনুষ্ঠানে ‘ঐক্য বাংলা’র আহ্বায়ক সুলগ্না দাশগুপ্ত বলেন, ‘নিজের দাদা-ঠাকুরদার নিজের রাজ্য এই বাংলাতেই আজ বাঙালি ব্রাত্য। এখানে বাঙালিকে পিছিয়ে রেখেছেন অবাঙালি আধিপত্য এবং হিন্দি সাম্রজ্যবাদ। অথচ, সমাজের কোনও স্তর থেকে নিজের রাজ্যে বাঙালির এই পিছিয়ে পড়ার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হচ্ছে না। তাই আমরাই বাঙালি জাতিকে তুলে ধরার জন্য সরব হয়েছি।’ অনুষ্ঠানে, সংগঠনের দাবিপত্রকে মাথায় রেখেই আরও বেশি করে বাঙালি সংস্থা তৈরি এবং বিভিন্ন সংস্থায় বাঙালি কর্মীদের নিয়োগের দাবি তোলেন উদ্যোক্তারা।

কয়েক বছর আগে, বাঙালি জাতির সাংস্কৃতিক জাগরণের লক্ষ্যে তৈরি হয়েছে ‘বাংলা পক্ষ’ নামে এক সংগঠন। কিন্তু, সেই সংগঠন কেবলমাত্র বাঙালির রাজনৈতিক, সামাজিক উন্নয়নের পক্ষে সওয়াল করে থাকে। বাংলা পক্ষ সমস্ত বাঙালির সামাজিক, রাজনৈতিক দিক নিয়ে সরব বাঙালির অর্থনৈতিক ক্ষমতা সৃষ্টির প্রশ্নটি অগ্রাহ্য করে। সেকথা মাথায় রেখে এই সংগঠনের সদস্যরা ‘বাংলা পক্ষ’ ছেড়ে বেরিয়ে এসে নতুন সংগঠন তৈরি করলেন বলে, ‘ঐক্য বাংলা’র নেতৃত্ব জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here