মেয়ের বাড়ি যাওয়া হল না, মাজদিয়ায় ট্রেনের ধাক্কায় বৃদ্ধার মৃত্যু

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদিয়া, ২৬ নভেম্বর:
মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছি বলে বেড়িয়ে ছিল মা। তবে মেয়ের বাড়িতে আর যাওয়া হল না। মাজদিয়া স্টেশনে ঘটে গেল মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। দেহ গেল রানাঘাট জি আর পি এফ দপ্তরে ময়নাতদন্তের জন্য।

জানাগেছে, নদিয়ার ভীমপুর থানার পাকুরগাছির রেনুবালা শিকদার (৬০), গতকাল বিকালে কৃষ্ণগঞ্জ থানার চৌগাছাতে বড় মেয়ের বাড়ি বেড়াতে আসেন। সেখান থেকে আজ সকালে তাঁর নাতি এবং বড় মেয়েকে সাথে নিয়ে ছোট মেয়ের বাড়ি ভায়নার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। যাবার সময় মাজদিয়া স্টেশনের এক নম্বর প্লাটফর্মের টিকিট কাউন্টার থেকে টিকিট কেটে দু নম্বর প্লাটফর্মে যাবার জন্য রেললাইনের ওভারব্রিজ ব্যবহার না করে রেললাইনের ওপর দিয়ে লাইন পার হবার চেষ্টা করেন। সেই সময় দু’নম্বর প্লাটফর্মে ট্রেন ঢুকে পড়ে। এই দেখে প্লাটফর্মের লোকজন চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করে। কিন্তু তাদের কথায় গুরুত্ব না দিয়ে রেললাইন পার হবার চেষ্টা করেন। মেয়ে ও নাতি কোনও রকমে প্লাটফর্মে উঠে গেলেও রেনুবালাদেবী উঠতে পারেননি। লাইন পার হতে না পারায় ট্রেন তাঁকে সজোরে ধাক্কা মারে। মেয়ে ও নাতি বেঁচে গেলেও ট্রেন চলে যাবার পর সবাই রেনুবালাদেবীর রক্তাক্ত দেহ দেখতে পায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় জি আর পি এফ। তারা এসে মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায় রানাঘাটে।

মৃত্যুর খবর ভীমপুরের পাকুরগাছিতে পৌঁছাতেই নেমে আসে শোকের ছায়া। এভাবে দিনের পর দিন লাইনে একাধিক ব্যক্তি কাটা পড়লেও এখনো মানুষের হুঁশ ফিরছে না। ঘটনার পরেও একই ছবি ধরা পড়ল ক্যামেরায়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here