পাপুয়া নিউগিনিকে দশ উইকেটে হারিয়ে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যাত্রা শুরু ওমানের

আমাদের ভারত ডেক্স,১৭ অক্টোবর: টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জনের ম্যাচে খেলতে নেমে পাপুয়া নিউগিনিকে ১০ উইকেটে হারিয়ে দিল ওমান।

রবিবার ওমানের আল আমরত ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ওমান অধিনায়ক জিসন মাকসুদ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে পাপুয়া নিউগিনি ১২৯ রান তোলে। পাপুয়া নিউগিনির অধিনায়ক আসাদ ভালা ৫৬ রান করেন। ৪৩ বলের তার ইনিংসে ছিল চারটে ৪ ও তিনটে ৬। প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই শূন্য রান করে ফিরে যায় ওপেনার টনি উরা। দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয় বলেই আরেক ওপেনার লেগা সিয়াকা শূন্য রানে বোল্ড হয়ে যায়। স্কোর বোর্ড চালু হওয়ার আগেই শূন্য রানে দুই উইকেট খুইয়ে চাপে পড়ে যায় পাপুয়া নিউগিনি। তৃতীয় উইকেটে জুটি বাঁধেন পাপুয়া নিউগিনির অধিনায়ক আসাদ ভালা ও চার্লস আমিনি। আমিনি ২৬ বলে ৩৭ রান তোলেন। তৃতীয় উইকেটে যোগ হয় ৮১ রান। এছাড়া সেসা বাউ ১৩ রান করেন। বাকিরা কেউ দুই অংকের রানে পৌঁছাতে পারেনি। ওমানের পক্ষে জিশান মাসুদ ২০ রানে ৪ টি এবং বিলাল খান ও কলিমুল্লাহ ২ টি করে উইকেট নেন। পাপুয়া নিউগিনির ইনিংস শেষ হয় ১২৯/৯ রানে।

১৩০ রানের টার্গেট হাতে নিয়ে খেলতে নেমে ওমান ১৩.৪ ওভারেই নির্ধারিত জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায়।ওমানের দুই ওপেনার আকিব লায়াস ৪৩ বলে অপরাজিত ৫০ ও জতিন্দর সিং ৪২ বলে ৭৩ রানে অপরাজিত থাকেন।  ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় হন ওমান অধিনায়ক জিসন মাকসুদ। ম্যাচের সেরা পুরস্কার নিয়ে তিনি বলেন, ‘এদিনের ম্যাচ জিতে আমরা খুব খুশি।  ওরা ভালো ব্যাটিং করেছে। তবে ওদের গুরুত্বপূর্ণ উইকেট তুলে নিয়ে আমরা ওদের ব্যাটসম্যানদের বড়ো রান করতে দিইনি। এই ধরনের উইকেটে ১২০ থেকে ১৪০ রান ধাওয়া করা যায়। উইকেট ভালো ছিল। আমাদের ব্যাটিং বোলিং ভালো হয়েছে। তবে ফিল্ডিংয়ে আরও উন্নতি করতে হবে।

যোগ্যতা অর্জন ম্যাচে ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ, স্কটল্যান্ড, পাপুয়া নিউগিনি ও ওমান। গ্রুপ ‘এ’ ও গ্রুপ ‘বি’ এই দুটি গ্রুপ থেকে দুটি করে দল মূলপর্বে যাবে। এদিনের ম্যাচ জিতে সেই রাস্তা কিছুটা হলেও সহজ করলো ওমান বলে ধারণা ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here