বুধবার এসইউ সিআই (সি)-র গণ আইন অমান্য আন্দোলনের ডাক

আমাদের ভারত, ২৩ জুন: আগামী, ২৯ জুন: কলকাতায় এক গণ আইন অমান্য আন্দোলনের ডাক দেওয়া হয়েছে। এসইউসিআই (কমিউনিস্ট)পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির তরফে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।

এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন – রাজ্য সম্পাদক চণ্ডীদাস ভট্টাচার্য, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অমিতাভ চ্যাটার্জি, স্বপন ঘোষাল, অশোক সামন্ত, রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য তরুণ মণ্ডল ও তরুণ নস্কর।

এসইউসিআই (কমিউনিস্ট)-র তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, “বর্তমানে তৃণমূল শাসিত রাজ্য সরকারের এসএসসি-নার্স সহ নানা ক্ষেত্রে নিয়োগে দুর্নীতি, স্বজনপোষণ, দলবাজি, উত্তরপ্রদেশের হাথরস-উন্নাও এর মতই কামদুনি-হাঁসখালি সহ রাজ্যজুড়ে নারী নির্যাতন, দুয়ারে মদ প্রকল্প, হাসপাতালে ২৮০টি ওষুধ সরবরাহ বন্ধ, চা-শ্রমিকদের দীর্ঘ দিনের ন্যূনতম মজুরির দাবির প্রতি অবহেলা, অতীতের রেকর্ড ছাপিয়ে শিক্ষায় দলীয় আধিপত্য আরও জোরদার করতে মুখ্যমন্ত্রীকে রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আচার্য পদে এবং শিক্ষামন্ত্রীকে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ভিজিটর পদে বসানোর, ইচ্ছামত ছুটি ঘোষণা করে শিক্ষার সর্বনাশ সাধন, স্কুল শিক্ষায় পিপিপি মডেল ও শিক্ষায় অনলাইন ব্যবস্থা চালু করার দ্বারা মুখে বিজেপি বিরোধিতা করতে করতেই কৌশলে জাতীয় শিক্ষানীতি-২০২০ কে রাজ্যে কার্যকর করার প্রতিবাদেই আমরা আগামী ২৯ জুন গণ আইন অমান্যের ডাক দিয়েছি।

একই সাথে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের পেট্রোল-ডিজেল, রান্নার গ্যাস, ওষুধের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি ঘটিয়ে জনগণের পকেট কেটে লক্ষ কোটি টাকা লুঠ করা, ব্যাঙ্ক-বীমা-রেল কমিউনিকেশন সহ রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলির বেসরকারীকরণ, কর্মী সঙ্কোচন, ছাঁটাই, শুধুমাত্র রেলেই ৮০ হাজার পদ বিলুপ্ত করা, শ্রমকোড-এর নামে শ্রমিকদের অর্জিত অধিকার কেড়ে নেওয়া, গণতান্ত্রিক শিক্ষার সমাধি রচনা করে সর্বনাশা জাতীয় শিক্ষানীতি-২০২০ চালু করার সাথে সাথে ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর উদ্দেশ্যে অন্য ধর্ম সম্পর্কে কটুক্তি এবং ইতিহাসের বিকৃতি ঘটিয়ে ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টির মাধ্যমে নির্বাচনী স্বার্থ চরিতার্থ করার হীন রাজনীতি, ‘ঠিকা সেনা’ নিয়োগের মাধ্যমে কর্মক্ষম যুবকদের প্রতারণার ‘অগ্নিপথ’ প্রকল্পের বিরুদ্ধে এবং কৃষকের ফসলের ন্যায্য মূল্য, ক্ষেতমজুরদের সারা বছরের কাজের দাবি তোলা হয়েছে।

এই কর্মসূচিকে সামনে রেখে ২৯ জুন বেলা ১টায় মৌলালির রামলীলা পার্কে আমাদের দলের আহ্বানে সারা রাজ্যের সমস্ত জেলা থেকে হাজার হাজার মানুষ আইন অমান্য আন্দোলনে অংশগ্রহণ করার জন্য জমায়েত হবেন। সেখানে সংক্ষিপ্ত সভার পর আইন অমান্যের উদ্দেশ্যে মিছিল শুরু হবে।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here