মমতার তোপ! রাজ্যে মাত্র এক হাজার জনকে নাগরিকত্ব দেবে, বাকিরা কোথায় যাবে?

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ২৭ ডিসেম্বর: এনআরসি নিয়ে বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার। তিনি বলেন, এই রাজ্যে ১০ কোটি মানুষ আছে। বিজেপি বলছে তারা মাত্র এক হাজার জনকে নাগরিকত্ব দেবে। বাকি মানুষ কোথায় যাবে? আজ তিনি নৈহাটি উৎসবের উদ্বোধন করে এ কথা বলেন।

নমঃশূদ্র অধ্যুষিত এই এলাকায় তিনি বলেন, নাগরিকত্ব নিয়ে মতুয়া সম্প্রদায়কে ভুল বোঝানো হচ্ছে। আমার কাছে সবাই প্রিয়। আমি নমঃশূদ্রদের ভালবাসি, আমি মতুয়াদের ভালবাসি। বিজেপির কাছ থেকে শিক্ষা নিতে হবে না, সব ধর্মকে আমি পছন্দ করি আমরা সবাই হিন্দুস্তানি।

বিজেপিকে নিশানা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন তুমি কে হে নাগরিকত্ব দেওয়ার? আমরা এদেশে জন্মেছি, ভোট দিয়ে সরকার বানাই। আমাদের কাছে ভোটার কার্ড আছে, রেশন কার্ড আছে, এই দেশের স্কুলে পড়েছি, আমরা সবাই নাগরিক। উপস্থিত মানুষের উদ্দেশে তিনি বলেন, আসলে সব ভুলিয়ে দিতে চাইছে। দেশের মানুষকে বিদেশি বানাবার চক্রান্ত করছে। তিনি বলেন, ১৯৪৭ সালের বিজেপি কোথায় ছিল? তখন তো জন্মই হয়নি, ৮০ সালে জন্ম। আজ তাদের কাছ থেকে আমাদের দেশের কথা শুনতে হবে? এরই পাশাপাশি তিনি বলেন, আপনার ভোটার তালিকার দিকে নজর রাখুন। এখন ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ চলছে, সেখানে অনেক নাম ভুল করা হচ্ছে।

মমতা বলেন, মানুষকে লাইনে দাঁড় করানো যাবে না। এখানে এনআরসি হবে না। কারণ এখানে আমাদের সরকার রয়েছে। বঙ্গবাসীর উদ্দেশ্য মমতার বার্তা, আপনারা শুধু ভোটার লিস্টে নামটা ঠিকঠাক করে তুলে রাখুন। তারপর দেখব বিজেপি কী করে দেশের মানুষকে বিদেশি বানায়।

মমতা বলেন, বিজেপি এমন একটা ফাঁদ পেতেছে যে, দেশের মানুষকে এরা বিদেশি বানিয়ে দেবে, তারপর নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে বলবে এবং এদের সরকার ঠিক করবে কে নাগরিক হবে। অর্থাৎ যাদের গলায় বিজেপির মাদুলি ঝোলানো থাকবে, তারাই নাগরিক। সে হবে না। মানুষ তোমাদের অভিসন্ধি পূরণ করতে দেবে না।

মমতা বলেন, রাজ্যে সব উদ্বাস্তু কলোনিকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। অতএব কোনও ভয় নেই। বাংলার সরকার মানুষের পাশে রয়েছে। বিজেপির অপচেষ্টা রুখবই আমরা। মানুষ সঙ্গে থাকলে, মোদী-শাহদের ক্ষমতা নেই অধিকার কেড়ে নেওয়ার। অধিকার কেড়ে নিতে দেব না। আমাদের অধিকার আমাদেরই থাকবে। বিজেপিকেই বিদায় নিতে হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here