তৃণমূলকে আটকাতে “শুধু মাল্যদান” নেতাইয়ে!

আমাদের ভারত, ঝাড়গ্রাম, ৩১ ডিসেম্বর: আগামী সাত জানুয়ারি নেতাই দিবসে শহিদ বেদিতে শুধু মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে নেতাই শহিদ স্মৃতি রক্ষা কমিটি। প্রতিবছর এই অনুষ্ঠানে শুভেন্দু অধিকারীর উপস্থিতিতে অনুষ্ঠান করে নিহত শহিদদের স্মরণ করার পর শহিদ বেদিতে মালা দেওয়া হয়। সম্প্রতি শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় সেই অংক বদলে গিয়েছে।

শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যাওয়ায় ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের পক্ষ থেকে নেতাই গ্রামে শহিদ স্মরণ সভা করার তোড়জোড় শুরু হয়েছিল। কিন্তু বুধবার নেতাই কমিউনিটি হলে স্মৃতি রক্ষা কমিটি শহিদ বেদিতে শুধুমাত্র মাল্যদান করে শ্রদ্ধা জানানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ায় তৃণমূলের সেই উদ্যোগ বিফল হতে বসেছে। জেলার রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, তৃণমূলকে আটকাতেই স্মরণ সভা বাতিলের এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্মৃতি রক্ষা কমিটি। সোমবার শুভেন্দু অধিকারী ঝাড়গ্রামে বিজেপির সভায় বলেছেন, এবারও তিনি নেতাই গ্রামের শহিদদের শ্রদ্ধা জানাতে যাবেন। তবে সেখানে বিজেপির কোনও পতাকা থাকবে না।

২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি নেতাই গ্রামে সিপিএম শিবির থেকে গ্রামবাসীদের লক্ষ্য করে গুলি চালানোর অভিযোগ ওঠে। গুলিতে চারজন মহিলা সহ ন’জনের মৃত্যু হয়। আহত হন ২৯ জন। এরপর থেকে নেতাই গ্রামে প্রতিবছর শহিদ স্মরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকেছেন শুভেন্দু অধিকারী। নিহতদের পরিবারের অনেককেই তিনি চাকরি দিয়েছেন। গরিব মানুষদের বাড়ি তৈরি করে দিয়েছেন এবং স্বনির্ভর করার জন্য মহিলাদের সেলাই মেশিন ইত্যাদি দিয়েছেন। এর ফলে ওই গ্রামে তার একটা প্রভাব রয়েছে। কিন্তু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর স্মৃতি রক্ষা কমিটি বেশ কিছুটা অস্বস্তিতে পড়ে যান। এজন্য এক বৈঠকে কমিটির পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ওই দিন কোনও স্মরণ সভা হবে না। বৈঠকে উপস্থিত শুভেন্দুর আপ্ত সহায়ক হিমাংশু মান্নাকে এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়।

শহিদ স্মৃতি রক্ষা কমিটির সভাপতি দ্বারকা নাথ পান্ডা জানিয়েছেন, এবার কোনও সভা মঞ্চ থাকছে না। বাতিল করা হয়েছে স্মরণ সভা। তবে ৭ জানুয়ারি সকালে কমিটির পক্ষ থেকে শহিদ বেদিতে মাল্যদান করা হবে। এরপর যারা শ্রদ্ধা জানাতে চান তারা মালা দিতে পারেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here