চার নেতাকে বহিস্কারের নির্দেশ! দুর্নীতি ইস্যুতে দলের স্পষ্ট বার্তার পরেও দুর্নীতিবাজদের পাক্ষেই সওয়াল দক্ষিণ দিনাজপুর তৃণমূলে

পিন্টু কুন্ডু, বালুরঘাট, ৭ আগস্ট: বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করেি জেলায় দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের দল থেকে ছেঁটে ফেলতে কড়া দাওয়াই দিয়েছে টিম পিকে। জনসাধারণের কাছে তৃণমূলের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি তুলে ধরতে নতুন করে সাজানো জেলা কমিটিতে স্থান পাবে না তোলাবাজি সহ একাধিক দুর্নীতিতে অভিযুক্ত বেশকিছু নেতৃত্ব। আগামী এক বছরের জন্য দল থেকে তাদের বহিষ্কার করার সিদ্ধান্তও হয়েছে রাজ্যের তরফে বলে দলীয় সূত্রে খবর। শুক্রবার বালুরঘাট সার্কিট হাউসে অনুষ্ঠিত গোপন বৈঠকে টিম পিকের সাথে এমন আলোচনাই সেরেছেন জেলা সভাপতি সহ চেয়ারম্যান, দুই কো-অর্ডিনেটর এবং দুই বিধায়ক। এদিকে ওই দুর্নীতিবাজদের দলে রাখতে মরিয়া হয়ে উঠেছে একশ্রেণির নেতৃত্ব। দুর্নীতি ইস্যুতে জেলার চার নেতার বহিস্কারের জল্পনা সামনে আসতেই, ধামাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে অনেকেই ভিড় জমিয়েছেন এদিন সার্কিট হাউসে।

আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে টেক্কা দিতে দলের শক্ত রণকৌশল তৈরি করার লক্ষ্যে টিম পিকের নির্দেশ মেনে এদিন সার্কিট হাউসে বৈঠকে বসেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। সকাল থেকে একের পরে এক ম্যারাথন মিটিং করেন জেলা সভাপতি গৌতম দাস, চেয়ারম্যান শঙ্কর চক্রবর্তী, দুই কো-অর্ডিনেটর ললিতা টিগ্গা, সুভাষ চাকী এবং ২ বিধায়ক বাচ্চু হাঁসদা ও তোরাব হোসেন মন্ডল। নতুন করে তৈরি জেলা কমিটিতে যাতে প্রতিটি ব্লক থেকেই গুরুত্বপূর্ণ নেতৃত্বরা স্থান পায় সেদিকও দেখা হয়েছে এদিনের বৈঠকে। একই সাথে নির্বাচনে মানুষের মন জয় করতে আগেভাগেই দুর্নীতিগ্রস্থ নেতৃত্বদের ছেঁটে ফেলার নির্দেশ এসেছে রাজ্য থেকে।

দলীয় সূত্রে খবর, দীর্ঘদিন ধরে জেলার সদর শহর বালুরঘাট, কুমারগঞ্জ, হরিরামপুর এবং কুশমন্ডি ব্লকের চার নেতার বিরুদ্ধে তোলাবাজি সহ একাধিক অভিযোগ সামনে আসে। তাদের দল থেকে সরিয়ে দিতে রাজ্য থেকে কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে জেলায়। যার মাধ্যমে বাড়তি অক্সিজেন পাবে তৃণমূল শিবির বলেই মনে করছেন অভিজ্ঞ মহল। তবে এদিনের সভার শুরু থেকেই দুর্নীতিবাজদের আড়াল করবার পাশাপাশি বহিস্কৃত নেতাদের তালিকা প্রকাশ্যে না আনবার জন্যও এদিন জেলার একাধিক নেতাকে জোর সওয়াল করতে দেখা গিয়েছে। শুধু তাই নয়, তাদের কথায় সায় না মেলায় মিটিং ছেড়ে বেরিয়েও যেতে দেখা গেছে দু- চারজনকে। যাকে ঘিরে সভাপতির নতুন জেলা কমিটি গঠনের স্বচ্ছতা নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন।

জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌতম দাস জানিয়েছে, রাজ্যের নির্দেশে জেলা কমিটি তৈরীর জন্য বৈঠক করা হয়েছে। তাদের খসড়া তালিকা শীর্ষ নেতৃত্বের অনুমোদন পেলে চুড়ান্ত করা হবে। তবে দলকে যারা কালিমালিপ্ত করে তাদের কোনও ভাবেই স্থান দেওয়া হবে না। এমন সব নেতৃত্বদের বহিষ্কার এবং সাসপেন্ডের বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here