“লোকে টাকা জমায় ফ্ল্যাট কেনার জন্য, আর পার্থবাবু ফ্ল্যাট কেনেন টাকা জমানোর জন্য”

আমাদের ভারত, ২৮ জুলাই: “লোকে টাকা জমায় ফ্ল্যাট কেনার জন্য, আর পার্থবাবু ফ্ল্যাট কেনেন টাকা জমানোর জন্য” রাজ্যের দুর্নীতি কাণ্ডে এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিতর্কিত বাংলাদেশী লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

নিয়োগ দুর্নীতিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের নামে থাকা একাধিক ফ্ল্যাট থেকে কাড়ি কাড়ি টাকা উদ্ধার করেছে ইডি। যার হিসেব দেখতে দেখতে ক্লান্ত বাঙালি রাতও জেগেছে। পুরো ঘটনায় হতবাক রাজ্যের মানুষ। থরে থরে সাজানো টাকা, বস্তা বন্দি টাকা। সোনার বাট, কয়েন একেবারে আলিবাবার খাজানা হয়েছিল ফ্ল্যাটগুলি। জেরায় অর্পিতা বলেছেন ওই ফ্ল্যাট তার নামে থাকলেও সেখানে তার প্রবেশাধিকার ছিল না। আর এটাও ইডির তরফে বলা হয়েছে এটা ১২০ কোটি টাকার দুর্নীতি, তার মধ্যে অর্ধেকেরও কম এখন সামনে এসেছে। আর এই সব নিয়ে এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় কটাক্ষ করতে দেখা গেল বাংলাদেশের লেখিকা তসলিমা নাসরিনকে।

তিনি ফেসবুকে লিখেছেন, “এক কোটি টাকা তো কল্পনাই করতে পারি না। সেখানে পার্থ চট্টোপাধ্যায় তাঁর দু’দুটি ফ্ল্যাটে ৫০ কোটি টাকা লুকিয়ে রেখেছিলেন। একটা ফ্ল্যাট থেকে বেরোল ২১.৯০ কোটি টাকা আর এক ফ্ল্যাট থেকে বেরোল ২৭.৯০ কোটি টাকা ক্যাশ। ভাবলে কেমন গা কাঁপে। টাকাগুলো ঘুষের টাকা, অবৈধ টাকা। লোকে বলছে, আমরা টাকা জমাই ফ্ল্যাট কিনবো বলে, আর পার্থবাবু ফ্ল্যাট কেনেন টাকা জমানোর জন্য।”

লেখিকা প্রশ্ন তুলেছেন একটা মানুষের জীবন স্বচ্ছল ভাবে চালাতে কি এতো টাকা লাগে? তিনি লিখেছেন, “কত টাকার দরকার হয় ভালো খাওয়া পরা আর ভালো জীবন যাপনের জন্য? এত টাকা চুরি করে এত যোগ্য লোককে চাকরি না দিয়ে, মানুষ কি ভালো থাকতে পারে? মনের শান্তি কি করে আসে? জানি অসৎ লোকের আচরণ, ডাকাত খুনিরা বেশ চমৎকার জীবনযাপন করে। এই পৃথিবীতে কর্মফল প্রায় কাউকে ভোগ করতে হয় না।”

একই সঙ্গে তসলিমা লিখেছেন, “অসম পৃথিবীতে পার্থবাবু বোকা ছিলেন বলেই ধরা পড়েছেন, ধরা না পড়ার সংখ্যাটা প্রচন্ড বেশি।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here