রায়গঞ্জে নাকা চেকিংয়ের সময় সিভিক ভলান্টিয়ার ও পুলিশের উপর হামলা বিহারের বাসিন্দাদের

আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ২২ এপ্রিল:
নাকা চেকিং চলার সময় সিভিক ভলান্টিয়ার ও গ্রামীন পুলিশের উপর হামলার অভিযোগ ওঠে বিহারের কিছু বাসিন্দাদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ থানার বাংলা-বিহার সীমান্ত সুরুন গ্রামপঞ্চায়েতের বিশাহার গ্রামে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় রায়গঞ্জ থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। ঘটনার পর পালিয়ে যায় বিহারের ওই বাসিন্দারা। এরপর রায়গঞ্জ থানার আইসি সুরজ থাপার নেতৃত্বে পুলিশ বাংলা-বিহার সীমান্ত বিশাহার গ্রামে ট্রানজিট পয়েন্টে শুরু করে নাকা চেকিং। এরাজ্যের নাগরিকত্বের বৈধ কাগজ ছাড়া আর কাউকেই প্রবেশ করা বন্ধ করে দেয় পুলিশ।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। এক রাজ্যের মানুষের অন্য রাজ্যে আসা যাওয়া বন্ধ রয়েছে। কড়া নজরদারি চালাচ্ছে পুলিশ। উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ থানার বাংলা-বিহার সীমান্ত এলাকা সুরুন গ্রামপঞ্চায়েতের বিশাহার গ্রামে নাকা চেকিং করছিল গ্রামীন পুলিশ ও সিভিক ভলান্টিয়াররা। জনা পঞ্চাশেক বিহারের বাসিন্দা জোর করে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জে প্রবেশ করতে চাইলে কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীরা তাদের বাধা দেয়। অভিযোগ, সেই সময় বিহারের ওই বাসিন্দারা পুলিশ কর্মীদের উপর হামলা চালায়। তাদের মারধর করে এবং তাদের গাড়িতে ভাঙ্গচুর চালায়।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, স্থানীয় পঞ্চায়েতের প্রধানের স্বামী দুস্কৃতীদের মদত দেয়। ঘটনার খবর পেয়েই বিশাহার গ্রামে ছুটে আসে রায়গঞ্জ থানার আইসি’র নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী। পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এরপর থেকে ওই এলাকায় কড়া নজরদারির পাশাপাশি নাকা চেকিং শুরু করে পুলিশ। এরাজ্যের বাসিন্দা হিসেবে বৈধ কাগজ ছাড়া প্রবেশ নিষিদ্ধ করে দেয় পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here