লকডাউনে শহরের বাসিন্দাদের মনোবল অটুট রাখতে রাজপথে গান গেয়ে সচেতন বার্তা পুলিশের

সৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা, ২ মার্চ: কলকাতাকে বলা হয় ‘সিটি অফ জয়’। কিন্তু করোনা আতঙ্কে লকডাউনে গৃহবন্দি থেকে সেই হাসিমুখ যেন হারিয়ে গিয়েছে শহরবাসীর। কিন্তু কষ্ট হলেও সরকারি নিয়ম যথাযথ মানার জন্য ও শহরবাসীর মনোবল অটুট রাখার জন্য অভিনব কায়দায় কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করল পুলিশ। এন্টালি থানার ওসি দেবাশিস দত্ত থেকে গড়িয়াহাট থানার ওসি সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার সহকর্মীদের এই বিশেষ উদ্যোগ মন কেড়ে নিয়েছে সকলের।

এর আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা গিয়েছে, মাইক হাতে গান গাইছেন হায়দরাবাদ, পুনে বা মুম্বই পুলিশ। কিন্তু বুধবার বিকেলে এই দৃশ্য দেখা গেল খোদ কলকাতার রাজপথে। বুধবার বিকেলে আচমকাই গান বাজনার আওয়াজ শুনে নিজেদের ব্যালকনি থেকে ছাদে ছুটে আসেন অনেক আবাসনের মানুষজন। দেখা যায়, ওসি-সহ থানার একদল পুলিশকর্মী নিজেদের কন্ঠে ‘আমরা করব জয়’, ‘উই শ্যাল ওভারকাম’ গান গেয়ে হাততালি দিয়ে ধন্যবাদ জানাচ্ছেন আবাসনের বাসিন্দাদের। আবাসনের বাসিন্দাদেরও গলা মেলাতে আর হাততালি দিতে ইশারায় অনুরোধ করছেন। রাস্তায় রাখা বক্সে সেই গান ছড়িয়ে গেল সারা এলাকায়।

বুধবার বিকেলে পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা তেও গড়িয়াহাটেও দেখা গেল একই রকমের চিত্র। ওসি সৌম্য বন্দোপাধ্যায় ও তার সহকর্মীরা বিখ্যাত বাঙালি গায়ক অঞ্জন দত্তের বিখ্যাত গান বেলা বোসের অনুকরণে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে গান গেয়ে সর্তকতা প্রচার করলেন। প্রত্যেকের হাতে ছিল মোবাইলের টর্চ।

মানবিক এই আবেদনে সাড়া দিতে দেরি করেননি আবাসনের বাসিন্দারাও। ঘর থেকেই হাততালি দিতে দিতে তারাও গলা মিলিয়েছেন পুলিশের সঙ্গে। আবার গড়িয়াহাটেও আবাসন থেকে মোবাইলের টর্চ দেখিয়ে তারা পুলিশের এই উদ্যোগকে সমর্থন করেছেন। বিভিন্ন আবাসনে এভাবেই গান গেয়ে ঘুরে বেরিয়েছেন পুলিশকর্মীরা।

দু’জন অফিসারের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে প্রশংসা করেছেন লালবাজারের কর্তারাও। লালবাজারের এক কর্তা বলেন, ‘শুধু অপরাধী বা আইন সামলানো নয়, পুলিশের সমাজের প্রতি কিছুু মানবিক দায়িত্বও থাকে। প্রচারের লোভে নয়, সেই মানবিকতার টানেই পুলিশকর্মীরা এই কাজ করছেন। এই শুভ উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়।’

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here