ফিল্মি কায়দায় মৃত্যুর মুখ থেকে অপহৃত ব্যবসায়ীকে বাঁচালো পুলিশ, করদহে ডাকাতির ঘটনা নিয়ে প্রশংসা কুড়োলো তপন থানার পুলিশ

পিন্টু কুন্ডু, বালুরঘাট, ১২ জুন: ডাকাতি ও অপহরণের ২৪ ঘন্টার মধ্যেই অপহৃত ব্যবসায়ীকে মৃত্যুর মুখ থেকে ফেরালো তপন থানার পুলিশ। কালিয়াচক থেকে ঘটনায় আক্রান্ত ব্যবসায়ীর এক নিকট আত্মীয় সহ মোট চারজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। পুলিশ জানিয়েছেন, ধৃতদের নাম পরিমল সরকার, রেজাউল হক, এরাজুল হক এবং আশিক শেখ। পরিমল সম্পর্কে ব্যবসায়ীর মাসতুতো ভাই। তপন থানার করদহ এলাকারই বাসিন্দা সে। বাকি তিনজনের বাড়ি কলিয়াচক থানার সুজাপুর এলাকায়। শনিবার ধৃতদের আদালতে পাঠিয়ে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন জানিয়েছে তপন থানার পুলিশ।

পুলিশ সুত্রের খবর, ডাকাতির পরেই অপহৃত ব্যবসায়ীকে উদ্ধারের জন্য তড়িঘড়ি তদন্তে নামে তপন থানার পুলিশ। আইসির নেতৃত্বে একটি টিম ঘটনায় যুক্ত থাকা ব্যবসায়ীর এক নিকট আত্মীয় পরিমল সরকারকে গ্রেপ্তার করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেই উঠে আসে মালদা জেলার কলিয়াচক থানার সুজাপুর এলাকার বাসিন্দা রেজাউল হক, এরাজুল হক এবং আশিক শেখের নাম। এরপরেই গোপন সূত্রের খবর পেয়ে কালিয়াচক থানার ফতেকানি, জালালপুর এলাকায় পৌঁছায় তপন থানার পুলিশ। সেখানে গিয়ে ব্যবসায়ীকে উদ্ধারের পাশাপাশি অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। মৃত্যুর মুখ থেকে জীবন ফিরে পাওয়ায় পুলিশকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ব্যবসায়ী অসীম প্রামানিক সহ তার পরিবার।

অপহৃত হওয়া ব্যবসায়ী অসীম প্রামাণিক জানিয়েছেন, আর কিছু সময় হলেই তাকে মেরে ফেলা হতো। ঘটনা জানাজানি হয়ে যাওয়ায় দুষ্কৃতীরা তাকে মেরে ফেলার ছক কষেছিল। তার মৃতদেহ মাছ দিয়ে খাওয়ানোর পরিকল্পনা করেছিল তারা। কিন্তু তার আগেই পুলিশ পৌঁছে যাওয়ায় তাদের চক্রান্ত ব্যর্থ হয়। অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা পুলিশ করুক এই দাবি জানিয়েছেন তিনি।

ব্যবসায়ী স্ত্রী রাখি প্রামাণিক জানিয়েছেন, বিপদের সময় পুলিশ তাদের কাছে ভগবান রূপে হাজির হয়েছে। তার এক আত্মীয়ের সহযোগিতায় দুষ্কৃতীরা তাদের ছেলেকে অপহরণের চেষ্টা করেছিল। কিন্তু তাতে ব্যর্থ হওয়ায় তার স্বামীকে তুলে নিয়ে যায়। তিনি চান পুলিশ অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা করুক।

জানা গেছে, করদহের বাসিন্দা তথা মুদি ব্যবসায়ী অসীম প্রামানিক। একাধিক ছোট খাটো ব্যবসার মধ্যে দিয়ে আর্থিকভাবে কিছুটা স্বচ্ছল হয়ে উঠেছিলেন। যা মেনে নিতে পারেননি তার মাসতুতো ভাই পরিমল সরকার। বিভিন্ন ভাবে তার সাথে পেরে না উঠবার কারণে ছক কষে অসীমের একমাত্র ছেলেকে অপহরণ করবার। বৃহস্পতিবার রাতে সেই হিসাবেই কালিয়াচক থেকে লোক নিয়ে এসে শ্মশানযাত্রী সেজে রুটি নেবার নাম করে তার বাড়িতে ঢুকে তান্ডব চালায়। মারধর লুটপাটের পাশাপাশি পিস্তল ও ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হয় অসীম প্রামানিক নামে ওই ব্যবসায়ীকে। যদিও অসীমের দাবি, তার ছেলেকে অপহরণ করার ছক ছিল তাদের। লোডশেডিং হবার কারণে ছেলে লুকিয়ে যাওয়ায় তারা তা না পেরে আমাকেই অপহরণ করেছিল। শুক্রবার এই ঘটনা সামনে আসবার পরেই নড়েচড়ে বসেছিল পুলিশ প্রশাসন। এদিকে সংবাদমাধ্যমে খবর চাউর হতেই ওই ব্যবসায়ীর জীবন শেষ করে দিতে উদ্যত হয়েছিল দুষ্কৃতিরা। যদিও সঠিক সময়ে পুলিশ উপস্থিত হয়ে ব্যবসায়ীকে উদ্ধারের পাশাপাশি গ্রেপ্তার করেছে ওই দুষ্কৃতিদেরও। তপন থানার পুলিশের এমন উদ্যোগ প্রশংসা কুড়িয়েছে গোটা তপন ব্লকের মানুষের।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here