হুঁশিয়ারি! “দিল্লির কোনে লক্ষাধিক মানুষ জড়ো হয়েছে, কাশ্মীরের মত ওরা বাড়িতে ঢুকে মা- বোনেদের ধর্ষণ করে হত্যা করবে”

7

আমাদের ভারত,২৮ জানুয়ারি: কাশ্মীর,হায়দ্রাবাদ, কেরল, উত্তরপ্রদেশের মত দিল্লির এক কোনায় লেগে থাকা আগুন ছড়িয়ে পড়বে। ওরা দিল্লির বাড়িতে ঢুকে মা- বোনেদের ধর্ষণ করে খুন করবে। এভাবেই দিল্লিবাসীকে শাহিনবাগের আন্দোলন নিয়ে সতর্ক করলেন বিজেপির সাংসদ প্রবেশ ভার্মা। একই সঙ্গে তিনি বলেন, সরকারি জমিতে তৈরি মসজিদে বরদাস্ত করা হবে না কোনও রকম বিক্ষোভ প্রদর্শন। দিল্লিতে ক্ষমতায় এলে এক ঘন্টাও লাগবে না এইসব বিক্ষোভপ্রতিবাদ দমন করতে।

দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে এভাবেই সিএএ বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপি সাংসদ প্রবেশ ভার্মা। আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি দিল্লি বিধানসভা নির্বাচন। ফল প্রকাশ হবে ১১ তারিখ। বিজেপি সাংসদ প্রবেশের দাবি, এই নির্বাচন দেশের একতা তৈরি করার নির্বাচন। ১১ ফেব্রুয়ারি যদি বিজেপি ক্ষমতায় আসে তাহলে ঘণ্টাখানেকের মধ্যে সব বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দেওয়া হবে। সরকারি জমিতে তৈরি মসজিদে কখনোই বিক্ষোভ করতে দেওয়া হবে না।

একই সঙ্গে তিনি কাশ্মীরে পণ্ডিতদের তাড়ানোর প্রসঙ্গ টেনে মন্তব্য করেন, দিল্লির এককোনে লক্ষাধিক মানুষ জড়ো হয়েছে, এরা আপনার বাড়িতে ঢুকে মা বোনেদের ধর্ষণ করে হত্যা করবে। তখন মোদি–শাহ বাঁচাতে নাও থাকতে পারেন। তাই তিনি আশাবাদী নিজেদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই ভোট দেবে দিল্লিবাসি।
তাঁর দাবি, নরেন্দ্র মোদী সরকারে অনেক বেশি নিরাপদ সংখ্যাগুরুরা।

অন্যদিকে, সোমবার দিল্লিতে বিজেপির নির্বাচনী প্রচারে, দেশদ্রোহীদের গুলি করে মারা স্লোগান ওঠে। দিল্লির রিথালা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী হয়ে নির্বাচনী প্রচারে গিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর। ভিডিওতে অনুরোধ ঠাকুরকে বলতে দেখা গেছে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বিরোধী বিক্ষোভকারীরা দেশদ্রোহী। আর তার পরেই দেশদ্রোহীদের গুলি করে মারার শ্লোগান ওঠে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এই মন্তব্যে বিতর্ক তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here