প্রত্নক্ষেত্র চন্দ্রকেতুগড়, গৌতম দে-র মূল্যবান উপস্থাপনা

আমাদের ভারত, কলকাতা, ১০ সেপ্টেম্বর: প্রায় আড়াই হাজার বছরের ইতিহাস সমৃদ্ধ প্রত্নক্ষেত্র চন্দ্রকেতুগড়। প্রাক মৌর্য যুগ থেকে শুরু ক’রে গুপ্ত পরবর্তী সময়কাল পর্যন্ত এক নাগরিক সভ্যতার নিদর্শন মেলে উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলার দেগঙ্গা অঞ্চলে অবস্থিত চন্দ্রকেতুগড়ে।

শনিবার এ নিয়ে হল এক অনন্য প্রদর্শনী, দক্ষিণ কলকাতায় ডোভার লেনের দ্য ‘জি’স প্রিসিঙ্কট-এ। আলোকচিত্রী গৌতম দে চন্দ্রকেতুগড় প্রত্নস্থল, এখান থেকে প্রাপ্ত প্রত্নবস্তুর আলোকচিত্র ভিত্তিক লিপিবদ্ধকরণ করে চলেছেন তিন দশকেরও বেশি সময় ধ’রে। পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে তাঁর তোলা ছবির প্রর্দশন এবং তথ্যসমৃদ্ধ উপস্থাপনা হয়ে চলেছে বহুদিন ধরেই।

পোড়ামাটির ফলক, মূর্তি, বিশেষতঃ নানা ভঙ্গিমা, আবরণ এবং আভরণে ভূষিতা নারীমূর্তির কারণে চন্দ্রকেতুগড়ের পরিচিতি পৃথিবীব্যাপী। কিন্তু পোড়ামাটির পুরুষ ও নারীমূর্তি ছাড়াও মৃৎফলকে উৎকীর্ণ দৈনন্দিন জীবনযাত্রার প্রতিফলন, মিথুন মূর্তি, মৃৎপাত্র, বিভিন্ন রত্ন এবং উপরত্নের পুঁতি, হাড়, হাতির দাঁত, কাঠ এবং পাথরের নানাবিধ প্রত্নবস্তু এই স্থানের সমৃদ্ধ অতীতকে নির্দেশ করে। ‘দি হেরিটেজ কালেক্টিভ’ আয়োজিত দেড়ঘণ্টার উপস্থাপনায় ছিল স্লাইড, সঙ্গে বক্তব্য।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here