ভোটব্যাংকে থাবা! মমতার রাজ্যে মুসলিমদের প্রকৃত চিত্র তুলে ধরে, প্রচারে নামছে সংঘ ঘনিষ্ঠ মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ

নীল বনিক, আমাদের ভারত, কলকাতা, ১৮ জুলাই: ২০২১ এর নির্বাচনের আগে রাজ্যে মুসলিম সমাজের প্রকৃত চিত্র তুলে ধরতে আসরে নামছে মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই রাজ্য জুড়ে প্রচার করবে সংঘ ঘনিষ্ঠ সংগঠনটি। এব্যাপারে মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের ন্যাশনাল কনভেনার ড: শাহিদ আখতার রাজ্য নেতাদের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন বলে জানাগেছে।

মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের এরাজ্যের সংযোজক আলি আফজল চাঁদ বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের মুসলিমদের লেঠেল বাহিনী হিসেবে ব্যবহার করছেন। তিনি জানান, রাজ্যের বিভিন্ন জেলে প্রায় ২৬ হাজার মুললিম মানুষ বন্দি রয়েছেন। তারা প্রত্যেকেই বিভিন্ন রাজনৈতিক খুন ও অপকর্মের জন্য জেল খাটছেন। প্রকৃত শিক্ষার অভাবেই মুসলিম যুবকরা অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছেন। রাজনৈতিক স্বার্থেই তৃণমূল এদের ভোটের সময় ব্যবহার করে। করোনার সঙ্কট মিটলেই মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ সংখ্যালঘু সমাজের কাছে গিয়ে মানুষকে বোঝাবে। সামনেই ভোট। আর ভোটের সময় যাতে সংখ্যালঘু সমাজের মানুষকে অপকর্মে তৃণমূল ব্যবহার করাতে না পারে তারজন্য আমরা গ্রামে গিয়ে প্রচার করব। সাচার কমিটির রিপোর্টকে সামনে আনবে সংগঠন। এই কমিটির কোনও সুপারিশ তৃণমূল সরকার তা মানেনি বলে অভিযোগ করেন আলি আফজল চাঁদ।

পাশাপাশি রাজ্যের মুসলমান সমাজের কয়েকজন প্রভাবশালী লোক তৃণমূলের আমলে কিভাবে বৃত্তবান হয়েছেন তাও তুলে ধরবে মুসলিস রাষ্ট্রীয় মঞ্চ। মোটের উপর তৃণমূলের মুসলিম ভোট ব্যাঙ্কে থাবা বসাতে জোর প্রচার শুরু করবে আরএসএস ঘনিষ্ঠ মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ। সংগঠটি মনে করছে তৃণমূলের পাঁচ শতাংশ সংখ্যালঘু ভোটে থাবা বসাতে পারলেই কেল্লাফতে। তাহলেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নবান্নের চেয়ার থেকে নামানো সম্ভব হবে। সেই লক্ষ্যমাত্রা নিয়েই সাচার কমিটির রিপোর্টকে সামনে রেখে প্রচারের রনকৌশল ঠিক করছেন রাজ্য মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here