ইনোসেন্স অ্যাপের উদ্ভাবক প্রিয়াংশুকে সম্বর্ধনা জানালো মেদিনীপুর সমন্বয় সংস্থা

জে মাহাতো, আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ১ জুলাই:
অখণ্ড মেদিনীপুরের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন মেদিনীপুর সমন্বয় সংস্থার পক্ষ থেকে বুধবার সকালে নতুন ধরনের অ্যাপ “ইনোসেন্স” এর উদ্ভাবক মেদিনীপুর ডিএভি পাবলিক স্কুলের দ্বদশ শ্রেণির ১৭ বছর বয়স্ক প্রতিভাবান ছাত্র, তাঁতিগেড়িয়া মধ্যপাড়ার বাসিন্দা প্রিয়াংশু সিংকে সংস্থার প্রকাশিত বই ও পুস্পস্তবক দিয়ে সম্বর্ধিত করে উৎসাহিত করা হল ও প্রিয়াংশুর সব রকসম সাফল্য কামনা করা হল।

এই লকডাউনে স্কুল বন্ধ থাকার মাঝেই নতুন কিছু করে দেখানোর প্রচেষ্টার মধ্য দিয়েই দেশীয় প্রযুক্তিতেই গোটা দেশকে নতুন ধরনের অ্যাপ উপহার দিয়েছে প্রিয়াংশু। যেটা মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক সোশ্যাল মিডিয়া দিবসে আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন হয়েছে। ভারতে ইতিমধ্যে নিষিদ্ধ হয়ে যাওয়া টিকটক অ্যাপের বিকল্প হিসেবে তাঁর ইনোসেন্স অ্যাপ জনপ্রিয় হবার বিষয়ে প্রিয়াংশু আশাবাদী।

প্রিয়াংশুর বাবা কুমার রাজীব রঞ্জনের কাপড়ের ছোট দোকান রয়েছে, মা রিঙ্কি সিং গৃহবধূ।বাবা-মা ও দাদু পঞ্চবদন সিং এর সাথে প্রিয়াংশু তাঁতিগেড়িয়ার বাড়িতে থাকে। এই অ্যাপ বানানোর কাজে তাকে তার বন্ধু শিবম সিং কিছুটা সাহায্য করেছে।

মেদিনীপুর সমন্বয় সংস্থার পক্ষে সম্বর্ধনা জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সম্পাদক মৃত্যুঞ্জয় খাটুয়া, কার্যকরী সভাপতি অমিত কুমার সাহু, সহ সভাপতি ড: প্রসূন কুমার পড়িয়া, কোষাধ্যক্ষ ডাঃ অরূপ কুমার দাস, আঞ্চলিক কমিটির সদস্য সুদীপ খাঁড়া ও আজীবন সদস্য মনিকাঞ্চন রায় প্রমুখ। ঐতিহাসিক অখণ্ড মেদিনীপুর জেলার অতীত ইতিহাসকে ভালো করে জন্য ও বিদ্যাসাগর সম্পর্কে আরও সমৃদ্ধ হওয়ার জন্য অমিত সাহু তাঁর নিজের লেখা “আমার জেলা মেদিনীপুর” ও “কুইজে বিদ্যাসাগর ” বই দুখানিও উপহার দেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here