বঞ্চনার বিরুদ্ধে গড়বেতা ব্লকে দলিত জনগোষ্ঠীর মিছিল ও গণ ডেপুটেশন 

জে মাহাতো, আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ২৮ সেপ্টেম্বর: বঞ্চনার বিরুদ্ধে গড়বেতা শহরে মিছিল করলেন জেলার দলিত মানুষেরা। মিছিলটি ছিলে প্রায় এক কিমি লম্বা। আট কিমি পথে শ্লোগান দিতে দিতে মিছিল এসে পৌঁছায় গড়বেতা ব্লক দপ্তরে। মিছিলে ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সামাজিক ন্যায় মঞ্চ সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক অলোকেশ দাস, জেলা সম্পাদক রামেশ্বর দোলই, সভাপতি কৃষ্ণপ্রসাদ দুলে সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা। দেড় ঘন্টা মিছিলের পর ব্লক দপ্তর ঘেরাও করে চলে বিক্ষোভ সভা।

দলিত মানুষজনের অভিযোগ এবং দাবি ছিল- কৃষি ও ক্ষেতমজুরের কাজ করে সংসার চালানো দলিত মানুষদের মজুরি বৃদ্ধির দাবিকে দমন করেছে শাসকদলের গ্রামীন মোড়লরা, এই পরিবর্তনের জমানায় বহু ক্ষেত্রে মহিলা কৃষি শ্রমিকদের মজুরিও কমিয়ে দেওয়ার ঘটনা  ঘটেছে। বাদ্যিকার থেকে হাতের কাজ করে এমন জনজাতির  মানুষদের শিল্পীর মর্যাদা সহ তাদের ভাতা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। অথচ এলাকায় কীর্তনদল সহ গুটিকয়েক পছন্দের পুরোহিত, ইমামদের ভাতা দেওয়ার হচ্ছে। ধামসা মাদল সহ আদিবাসী সংস্কৃতির কৃষ্টি যারা বহন করে চলেছে তাদেরও শিল্পীর মর্যাদা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। সেই ভাতাতে দলবাজি সহ তোলা আদায় হয়েছে। গরিব মানুষকে পাট্টা দেওয়া হচ্ছে না। বহু ক্ষেত্রে এমন দলিত মানুষকে তাদের পাট্টা থেকে উচ্ছেদ করা হলেও এবং তার অভিযোগ পত্র জমা দিলেও প্রতিকার করা হয়নি। দাবি ওঠে প্রতিটি মৌজায় গিয়ে প্রসাশনকে সেই পাট্টা বিলি করতে হবে। জলাভূমি ও জঙ্গলের অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে। শিক্ষাক্ষেত্র সহ কর্ম সংস্থান সংস্থায় কঠোর ভাবে সংরক্ষণ নিয়ম মেনে চলা সহ তাকে সংকুচিত করার ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে।

দলিত মানুষদের অভিযোগ, সংঘ নির্দেশিত কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের পথেই এরাজ্যে তৃণমূলও সেই পথে আদিবাসী জনজাতির বিভিন্ন গোষ্ঠী সহ লায়োক, মাঝি, খয়রা, হাঁড়ি, ডোম, মাহালী, লোহার, মেথর, ভুঁইঞা, মেটে,  মাহাত, বাউরি মুচি এমন তপশিলি উপজাতি মানুষের অধিকারগুলি খর্ব করা হয়েছে। 

এই সঙ্গে অভিযোগ, দলিত পরিবারের পড়ুয়াদের হোষ্টেল সুযোগ দেওয়া হয় না। সেই সংখ্যা কমিয়ে দেওয়ার সাথে সাথে জঙ্গলমহলজুড়ে ৭২টি আবাসিক হোষ্টেল বন্ধ করা হয়েছে গত নয় বছরে। অবিলম্বে সেই আবাসিক হোষ্টেল চালুর দাবিতেও সরব হয়েছেন জনজাতির মানুষ।
সংঘের নির্দেশিত পথেই এরাজ্যে লায়েক, মাহাত, এমন নয়টি জনজাতিকে তপশিলি জাতি ও উপজাতি থেকে বাতিল করার প্রতিবাদ সহ তাদের পুনরায় সেই অধিকার দাবি জানানো হয়। দলিত মানুষের অধ্যূষিত এলাকায় বছরে ২০০ দিনের কাজ, সাড়ে তিনশ টাকা মজুরি সহ প্রতিমাসে মাথাপিছু পাঁচ কেজি করে চাল ও গম বিনামূল্যে দেওয়ার দাবি ওঠে। জাতি শংসাপত্র প্রদানের নানান সরকারি জটিলতা সহ ভূমিহীনদের জমির কাগজ নিয়ম পরিবর্তন করার দাবি জানানো হয়।

সংগঠনের ব্লক সম্পাদক অরুণ দুলের নেতৃত্বে হারাধন রুইদাস, বাসুদেব কোটাল, তপন কোটাল, সুনীল বাগদি, এমন পাঁচ। জনের প্রতিনিধি বিডিও দপ্তরে দাবিপত্র তুলে দিয়ে ডেপুটেশন দেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here