নন্দীগ্রামে আমফানের ক্ষতিপূরণের টাকা না পেয়ে দুর্নীতির অভিযোগে বিক্ষোভ পঞ্চায়েতের সদস্যদের বিরুদ্ধে

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ২ জুলাই: নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকের ভেকুটিয়া ১ ও নন্দীগ্রাম ২ ব্লকের বিরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের একাধিক গ্রামে বিক্ষোভ সাধারণ মানুষের। নন্দীগ্রাম ২ ব্লকের বিরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের এক পঞ্চায়েত সদস্য হরিপদ মান্না কাটমানি নিয়ে পাকাবাড়ি আছে এমন লোকেদের আমফান ঝড়ের জন্য টাকা পাইয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ। তা জানার পর বিক্ষোভে ফেটে পড়েন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মানসী শীট, নির্মল শীট, গীতা শীট সহ বহু মানুষ।

অপরদিকে নন্দীগ্রাম ১ ব্লকের ভেকুটিয়া অঞ্চলের এক বুথ সভাপতি সেক হাসিবুলকেও ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান সাধারণ মানুষ। এই নেতা নিজের পাকাবাড়ি থাকা সত্ত্বেও ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের দেওয়া ক্ষতিপূরণের টাকা নিয়েছিলেন। একই গ্রাম পঞ্চায়েতের গোখাবাড়ে পঞ্চায়েত সদস্যা মেহেরা বিবির স্বামী কাটমানি নিয়ে পাকাবাড়ির বাসিন্দাদের টাকা পাইয়ে দিয়েছে। নিজেও টাকা নিয়েছে। পরে অবশ্য চাপে পড়ে টাকা ফেরত দিয়েছে। অভিযোগ, আমফান ঝড়ে ক্ষতিপূরণ দেওয়ায় স্বজনপোষণ করা হচ্ছে। পাকাবাড়ি আছে এমন লোকজনরা টাকা পেয়ে গেছেন। কিন্ত যাদের কাঁচাবাড়ি ঝড়ে পড়ে গেছে তারা টাকা পাননি। যাদের পাকা বাড়ি তারা টাকা পেয়ে গেলেও আসল ক্ষতিগ্রস্তরা বঞ্চিত হচ্ছে। হাতে নাতে নেতারা ধরা পড়ে গেলে বিক্ষোভ চরমে ওঠে। কাটমানি নেওয়ারও অভিযোগ ওঠে। এই অভিযোগে গ্রামবাসীরা ওই সদস্যদের ও বুথ সভাপতিকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায়। বিক্ষোভের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় নন্দীগ্রাম থানার পুলিশ বাহিনী। চাপে পড়ে প্রধান ক্ষতিগ্রস্ত না হওয়া মানুষদের টাকা ফেরতের নির্দেশ দেন। অনেকে ফেরত দিয়েছেন আবার অনেকে ফেরত দেননি।

গতকাল রাত থেকে দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা। কয়েকদিন আগে গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসগুলিতেও বিক্ষোভ দেখান ক্ষতিগ্রস্তরা। খোদ বুথ সভাপতি হাসিবুল রহমান টাকা নিয়ে বসেছিলেন।বেগতিক বুঝে টাকা ফেরত দিয়েছেন। এমন নিদর্শন জেলাজুড়ে বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েতে ও ব্লকে বিক্ষোভ দেখান ক্ষতিগ্রস্তরা। সেক নূর ইসলাম, সাহেরা বিবি, সেক সাবির, রাজু দাস এরা কাঁচা ভাঙ্গাবাড়ির টাকা পায়নি অসহায় অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন।

বিক্ষোভ ও অভিযোগের ফলে চাপে পড়ে পঞ্চায়েত সদস্যা সাহেরা বিবি জানান, তার শাশুড়ির নামে টাকা পেয়েছিলেন তিনি তবে ফেরত দিয়েছেন। তিনি অকোপটে চাপে পড়ে স্বীকারও করে নেন। পাকাবাড়ি রয়েছে এই সদস্যার। এইসব ঘটনার জেরে এলাকার মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়েন, তার ফলেই আজকের এই বিক্ষোভ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here