পুরুলিয়া জেলা বিজেপিতে চাপা কোন্দল, দলীয় কার্যকর্তার বাড়ি থেকে সরল কার্যালয়

সাথী দাস, পুরুলিয়া, ২৮ জানুয়ারি: বঙ্গ বিজেপিতে অসন্তোষের পর, সেই আঁচ দেখা গেল পুরুলিয়াতেও। সদ্য জেলা সভাপতি পরিবর্তনের পর গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের আঁচ দেখা গিয়েছিল পুরুলিয়া জেলা বিজেপিতে। বুধবার, জেলা কমিটির আমূল পরিবর্তনের পর সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ প্রকাশ্যে এলো পুরুলিয়ায়। পৌর নির্বাচনের মুখে পুরুলিয়া শহরের দুলমিতে জেলা বিজেপি কার্যালয়ে রাতারাতি পড়ল তালা।

পরিবর্তন হয়ে গেল পুরুলিয়ার জেলা বিজেপি কার্যালয়। সেখান থেকে যাবতীয় জিনিসপত্র স্থানান্তর করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে নিমটাঁড় এলাকায় অবস্থিত একটি পুরোনো দলীয়ে কার্যালয়ে। ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে থেকেই জেলা বিজেপি কার্যালয় থেকে রাজনৈতিক রণকৌশল তৈরি করেছিল বিজেপি। পঞ্চায়েত নির্বাচন, সাংসদ নির্বাচন তারপর বিধায়ক নির্বাচন, একের পর এক বিজেপির সাফল্য উঠে এসেছিল দুলমির ওই কার্যালয় থেকেই। কিন্তু এবার ঠিক পৌর নির্বাচনের মুখেই সেই দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলতে থাকায় অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি নেতৃত্ব।

উল্লেখ, দুলমির ওই কার্যালয়টি দলীয় বিদায়ী ওবিসি মোর্চার রাজ্য নেতা সুভাষ মাহাতর বাড়িতে চলছিল। সামান্য ভাড়ার বিনিময়ে দলীয় স্বার্থে বিশাল ওই বাড়িটির নীচের তলায় কার্যালয় করার সুযোগ করে দিয়েছিলেন ওই বিজেপি নেতা। গত বিধানসভা নির্বাচনে কোনও কেন্দ্রে তাঁকে দাঁড়ানোর সুযোগ দেয়নি দল। তার পর থেকে জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ছিল তাঁর। ইতিমধ্যে দলীয় কমিটিতেও তাঁদের মতো কার্যকর্তা স্থান পাননি। এই পরিস্থিতিতে রাতারাতি ওই কার্যালয় সরে যাওয়ায় এই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে পদ্ম শিবিরে।

ঘটনায় প্রকাশ্যে বিজেপির গোষ্ঠীকন্দল আসছে বলে দাবি জেলা তৃণমূল নেতৃত্বর। যদিও প্রকাশ্যে সেই গোষ্ঠীকন্দল মানতে নারাজ বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁদের দাবি, আগাম পরিকল্পনা মতো কার্যালয়টি দুলমি থেকে নিমটাঁড়ে স্থানান্তর করা হচ্ছে। তবে এই গোটা ঘটনা ঘিরে বিজেপি দলে অস্বস্তির পরিবেশ তৈরি হয়েছে, তা বলা বাহুল্য।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here