ট্রেনে পরিযায়ী মৃতা সদ্যোজাতের পরিবারের পাশে থেকে রেলের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ পুরুলিয়া তৃণমূলের

সাথী দাস, পুরুলিয়া, ১১ জুন: কেরালা থেকে পুরুলিয়ায় ফেরার পথে ১৮ দিনের শিশুকন্যার মৃত্যুর পর শোরগোল পড়ে গিয়েছে পুরুলিয়া জেলায়। রেলের বিরুদ্ধে উঠছে অসহযোগিতার অভিযোগ। প্রতিবাদে রেলের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে নামার হুঁশিয়ারি পুরুলিয়া জেলা তৃণমূলের, এমনটাই জানালেন তৃণমূল কংগ্রেসের বরিষ্ঠ সহ-সভাপতি তথা পুরুলিয়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি সুজয় বন্দোপাধ্যায়।

কেরালা থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে পুরুলিয়ায় ফেরার পথে ১৮ দিনের শিশুকন্যার মৃত্যুর ঘটনা ঘটে গতকাল। শোকের ছায়া নেমে আসে পুরুলিয়ার জয়পুরের বালি গ্রামের বাসিন্দা দিলদার আনসারীর পরিবারে।

কেরালার কাসারগড়ে দিলদার ও সরফরাজ ব্যাগ তৈরীর কারখানায় কাজ করতেন। তারপর কোরোনা মোকাবিলায় লোকডাউন জারি হওয়াতে বন্ধ হয়ে যায় কাজ। দীর্ঘ চেষ্টার পরেও তারা বাড়ি ফিরতে পারেনি। শেষে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে মঙ্গলবার রওনা দেয় তারা। মাঝপথে ওড়িশার কাছে রেশমা ও দিলদারের ১৮ দিনের শিশুকন্যা রাবিয়া অসুস্থ হয়ে পড়ে। অভিযোগ, রেলের হেল্পলাইন নম্বর ১৩৯ – তে ফোন করেও কোনও সাহায্য পাননি তারা। উল্টে রেল থেকে নামার চেষ্টা করলে রেলপুলিশের কাছ থেকে মেলে ধমক। এরপরই বিনা চিকিৎসায় ওই শিশুকন্যার মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ ওঠে। খড়্গপুরে সেই শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন পৌঁছাতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে পুরুলিয়া জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্পেশাল গাড়ি পাঠানো হয় খড়্গপুরে। পুরুলিয়ায় পৌঁছাতেই তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। আজ পুরুলিয়া জেলা তৃণমূলের পক্ষ থেকে দিলদার ও রেশমার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান পুরুলিয়া জেলার সভাধিপতি সুজয় বন্দোপাধ্যায়, জেলা তৃণমূলের যুব সভাপতি সুশান্ত মাহাতো সহ অন্যান্যরা। সেখানে গিয়ে ওই পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দেয় তৃণমূল নেতৃত্ব। পাশাপাশি ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন শেষে ওই পরিবারের পক্ষ থেকে রেলের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তুলে আইনি লড়াইয়ে নামার কথা বলেন সভাধিপতি সুজয় বন্দোপাধ্যায়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here