বৃষ্টির মুখ চেয়ে রাজ শুভশ্রীর বিয়ে হল রায়দিঘিতে, হাজির ১০ গ্রামের মানুষ

বৃষ্টির মুখ চেয়ে রাজ শুভশ্রীর বিয়ে হল রায়দিঘিতে, হাজির ১০ গ্রামের মানুষ

আমাদের ভারত,রায়দিঘী, ২০ জুলাই: রাজ্যে বর্ষা ঢুকেছে। উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে প্রতিদিন বৃষ্টি হলেও বৃষ্টির দেখা নেই দক্ষিণবঙ্গে। পরিসংখ্যান বলছে এখনও দক্ষিণবঙ্গে ৫০ শতাংশের বেশি বৃষ্টি ঘাটতি। বৃষ্টির অভাবে মাঠে চাষের কাজ না করতে পেরে বেজায় সমস্যায় কৃষকরা। বীজতোলাও শুকচ্ছে মাঠেই। তাই বৃষ্টি যাতে দ্রুত আসে সেই কারণে ব্যাঙের বিয়ের আয়োজন করা হল দক্ষিণ ২৪ পরগণার রায়দিঘী থানার অন্তর্গত কৌতলাতে।

গ্রামবাসীদের বিশ্বাস, ব্যাঙের বিয়ে দিলেই নাকি বৃষ্টি হবে। তাই গ্রামের মানুষ মিলে ব্যবস্থা করেছেন ব্যাঙয়ের বিয়ের অনুষ্ঠান। সখ করে গ্রামের লোকেরা এই দুই ব্যাঙকে রাজ ও শুভশ্রী বলে নাম দিয়েছেন। শুক্রবার রাতে তাই এই রাজ, শুভশ্রীর বিয়ে নিয়েই মেতে উঠলেন রায়দিঘীর কৌতলা ও আশপাশের গ্রামের মানুষজন।

ব্যাঙের বিয়ে হলেও প্রচলিত সমস্ত রীতিনীতি মেনে পুরহিতের মন্ত্র উচ্চারণের মধ্যে দিয়ে শুক্রবার রাতে রাজ ও শুভশ্রীর বিয়ে দেন স্থানীয় মানুষজন। স্থানীয় কার্তিক সংঘের ব্যবস্থাপনায় রীতিমত ঢাক, বাজনা বাজিয়ে বয়ারদীঘির পাত্র ব্যাঙ রাজের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয় কৌতলার পাত্রী ব্যাঙ শুভশ্রীর সঙ্গে। আর এই বিয়ে দেখতেই আশপাশের গ্রামের প্রচুর মানুষ ভিড় করেন ওই অনুষ্ঠানে। বিয়েতে আগত মানুষজনদের পাত পেড়ে খাওয়ানোর ব্যবস্থাও করেন উদ্যোক্তারা।

আমন চাষ মূলত বৃষ্টিপাতের ওপরই নির্ভর করে। কিন্তু এবার বৃষ্টিপাতের অভাবে চিন্তার ভাঁজ সকলের কপালে। অতীতে রীতি ছিল, কোনও বছর অনাবৃষ্টি কিম্বা খরা হলে ব্যাঙের বিয়ে দিলে সেই খরা কেটে যেত। সেই অতীতের বিশ্বাস মেনেই এদিন পুরোহিত ডেকে কৃষিতে বাধা দূরীকরণের লক্ষ্যে রীতিমতো অনুষ্ঠান করে দুটি ব্যাঙের বিয়ের ব্যবস্থা করেন গ্রামবাসীরা৷ প্রায় ১০টি গ্রামের মানুষ হাজির হয় ওই বিয়ের অনুষ্ঠানে। শুক্রবার রাতে এই ব্যাঙের বিয়ে দেখতে প্রচুর মানুষের ভিড় ছিল এই কৌতোলার বারোয়ারি মাঠে। সকলের বিশ্বাস এবার নিশ্চয়ই বৃষ্টি আসবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + seventeen =