পৈশাচিক! ঘুমন্ত দম্পতি ও শিশুপুত্রকে থেঁতলে খুন করে মৃতদেহের সঙ্গে তিন ঘন্টা ধরে যৌনসঙ্গম

আমাদের ভারত,৩ ডিসেম্বর:হায়দ্রাবাদের গণধর্ষণের ঘটনায় উত্তাল হয়েছে দেশ। তার মধ্যে আবার প্রকাশ্যে এলো আরও একটি নৃশংস ঘটনা। এখানে অভিযুক্ত একসাথে তিনটি খুন করেছে। এরপর মৃতদেহের সঙ্গে তিন ঘণ্টা ধরে যৌন সঙ্গম করেছে। এমনকি যৌনসঙ্গমের পুরো ঘটনা ভিডিও রেকর্ডিং করেছে সে। পুলিশ এই বিকৃত মনের ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। উত্তরপ্রদেশের আজমগড়ের এই ঘটনা শুনে শিউরে উঠেছে পুলিশ কর্তারাও।

সপ্তাহ খানেক আগে উত্তরপ্রদেশের আজমগড়ের মোবারকপুর এলাকায় একটি বাড়ি থেকে এক দম্পতি ও তাদের চার মাসের শিশু পুত্রের ক্ষতবিক্ষত থেতলানো দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। একই সঙ্গে ওই পরিবারের আরো দুই শিশুকে মারাত্মক জখম অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। আহত দুই শিশুর বয়ান থেকে জানা যায় হাড় হিম করা ঘটনা।

অভিযোগ বাড়িতে ঢুকে ঘুমন্ত দম্পতিকে এবং তাদের চার মাসের শিশু পুত্রকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ও পাথর দিয়ে থেঁতলে খুন করে। এরপর সে মহিলার মৃতদেহের সঙ্গে যৌন সঙ্গম করে ।যাওয়ার আগে ওই পরিবারের আরও এক ব
নাবালিকাকে ধর্ষণ করে। গুরুতরভাবে মারধর করে ওই নাবালিকার চার বছরের ভাইকে।

পুলিশ ওই বাড়ি থেকে তিনটি নগ্ন দেহ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া প্রমাণের ভিত্তিতে সোমবার নাসিরুদ্দিন নামে ওই ব্যক্তিকে
গ্রেফতার করে পুলিশ। জেরার মুখে নিজের অপরাধ স্বীকার করেছেন নাসিরুদ্দিন।

পুলিশ জানিয়েছে অভিযুক্ত, মহিলা মৃতদেহের সঙ্গে তিন ঘন্টা ধরে যৌনসঙ্গম চালিয়েছে এবং সেটির একটি একটি ভিডিও করেছে। এমনকি ওই ভিডিটি সে তার এক আত্মীয়কেও দেখিয়েছেন। অভিযুক্ত জানিয়েছে তার কাছে সবসময় যৌন উত্তেজক ওষুধ এবং কনডম মজুত থাকত।তরীতিমতো পরিকল্পনা করে ছক কষেই সেই এই খুন গুলি করেছে সে।

তবে এই পৈশাচিক ঘটনা এবারই প্রথম নয় পশ্চিমবঙ্গ, হরিয়ানা, দিল্লীতেও একই কায়দায় একের পর এক অপরাধ করে গেছে নাসিরুদ্দিন। শেষে উত্তর প্রদেশে ধরা পড়ল সে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here