কলকাতাতেই রের্কড ৫২৪! রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ১৩৯০, মৃত্যু ২৪, সুস্থ ৭১৮

রাজেন রায়, কলকাতা, ১৪ জুলাই: বিপুল সংক্রমণের ধারা বজায় থাকলেও কিছুটা কম সংক্রমণ ধরা পড়ল মঙ্গলবারের বুলেটিনে। এ দিনের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় নতুন সংক্রমণের হদিশ মিলেছে ১৩৯০ জনের। এর মধ্যে কলকাতাতেই রেকর্ড সংক্রমণ ৫২৪ জনের। মোট মৃত ৯৮০ জনের মধ্যে ৫১৬ জন কলকাতারই। এদিনও ২৯৩ জন সংক্রমণ ও ৮ জনের মৃত্যুতে বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে উত্তর ২৪ পরগনাও। একই সঙ্গে জানা গিয়েছে, মন্ত্রী সাধন পান্ডের স্ত্রী সুপ্তি পান্ডের করোনা পজিটিভ। তাকে হোম কোয়ারেনটাইনে রাখা হয়েছে। দু’দিন আগে শ্যালক শঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় করোনায় মারা যান।

এদিনও রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৪ জনের, যার মধ্যে ৭ জন কলকাতার, ৮ জন উত্তর ২৪ পরগনার, ৫ জন হাওড়ার। সুস্থ হয়েছেন ৬৩২ জন। ২৪ ঘন্টায় ১৩৯০ জন করোনা পজিটিভে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩২৮৩৮ জনে। আরও ২৪ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে সরকারি হিসেবে মোট করোনায় মৃত্যু ৯৮০ জনের। এদিকে ২৪ ঘন্টায় আরও ৬৩২ জন সুস্থের হিসেব ধরলে মোট সুস্থ হলেন ১৯৯৩১ জন।

এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে কলকাতাতে এদিনও ১৯৯ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ১৯৫ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১১১ জন, হাওড়ায় ১০৪ জন সুস্থ হয়েছেন। কিন্তু বিপুল সংক্রমণের জেরে সুস্থতার হার অনেকটা কমে দাঁড়িয়েছে ৬০.৬৯ শতাংশে। এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ১১৯২৭ জন। তার মধ্যে এদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৬৪৮ জন।

বুলেটিনে আরও জানানো হয়েছে, এদিন পর্যন্ত রাজ্যের ৫২টি ল্যাবে মোট করোনা টেস্টের সংখ্যা ৬৩৮৫৪০ জনের। তার মধ্যে ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ১১১০২ জনের। রাজ্যের ৮০টি করোনা হাসপাতাল, ২৬টি সরকারি এবং ৫৪টি বেসরকারি হাসপাতালে মোট ১০৮৩২টি বেড আছে, আইসিইউ পরিষেবা রয়েছে ৯৪৮ জনের। ভেন্টিলেটর রয়েছে
৩৯৫টি। তার ৩১.১৪ শতাংশ রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি ৫৮২টি কোয়ারেন্টাইনে এখন রয়েছেন ৪৩৮৮ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ১০১৬৪৪ জনকে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ২৬২০১ জন। ছেড়ে দেওয়া হয়েছে ৩৩৫১৩২ জনকে। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকদের তথ্যে জানানো হয়েছে, ৭৪২ টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৩৩৭৫ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষা করে সুস্থ দেখে ২৭২৫৫১ জন শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে সেফ হোম ও তার বেড সংখ্যা এবং সেখানে রোগীদের সংখ্যা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, রাজ্যের ১০৬ টি সেফ হোমে ৬৯০৮ টি বেড রয়েছে এবং তাতে ২৯৭ জন রোগী রয়েছেন।

এছাড়া এদিনের বুলেটিনে জেলাওয়াড়ি তথ্যে জানানো হয়েছে, কলকাতায় এদিন রেকর্ড ৫২৪ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মোট সংক্রমণ ১০৫৫০ জনের। এদিন কলকাতায় আরও ৭ জনের মৃত্যু হওয়ায় কলকাতাতে মোট মৃত্যু ৫১৬ জনের। এছাড়া এদিন উত্তর ২৪ পরগনাতেও ২৯৩ জন সংক্রামিতের সংখ্যা বাড়ায় মোট আক্রান্ত সংখ্যা ৬২৮৫ জন। এখানেও এদিন আরও ৮ জনের মৃত্যু হওয়ায় মোট মৃত্যু ১৮০ জন। এছাড়া হাওড়ায় ৫ জন, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২ জন, হুগলি ও দক্ষিণ দিনাজপুরে ১ জন করে করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এদিন অন্যান্য জেলার সঙ্গে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১৪৩ জন, হাওড়ায় ১১৯ জন, পশ্চিম মেদিনীপুরে ৬৭ জন এবম মালদায় ৫২ জনের উল্লেখযোগ্য হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিন উত্তরবঙ্গে কোচবিহার এবং দক্ষিণবঙ্গের পুরুলিয়া ও ঝাড়গ্রাম ছাড়া সংক্রমণ বেড়েছে রাজ্যের বাকি সমস্ত জেলাতেই।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here