দেশের মাটি’র ‘সারদা’ স্মরণ

মিলন খামারিয়া
আমাদের ভারত, কলকাতা, ২২ জুলাই: প্রাচীন কাল থেকেই ভক্তির ধারা ভারতবর্ষে প্রবাহমান। সেই ধারার অমৃত রসে জারিত হয়েই ভারতের সভ্যতা ও সংস্কৃতি বিকশিত হয়েছে। ভারতের সংস্কৃতিকে পূর্ণতা দানে সবচেয়ে বেশি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন নারীরা।সামাজিক, সাংস্কৃতিক, আধ্যাত্মিক- সব ক্ষেত্রই তাদের পরশে সঞ্জীবিত হয়েছে। দেশ রক্ষার্থে তারা যেমন হাতে অস্ত্র তুলে নিয়েছেন তেমনি সন্তানকে সুন্দর করে গড়েও তুলেছেন। মাতৃত্বের স্নেহে অগণিত সন্তানকে কাছে টেনে নিয়েছেন, এমন এক মহীয়সী নারী হলেন মা ‘সারদামনি’। উনিশ শতকের বিশিষ্ট বাঙালি ধর্মগুরু রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের স্ত্রী ও সাধনসঙ্গিনী এবং রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সংঘজননী। সেই সারদা মায়ের ১০২ তম প্রয়াণ দিবস পালন করলো ‘দেশের মাটি’।

আরও পড়ুন ধর্মীয় পরিচিতির ভিত্তিতে উচ্চমাধ্যমিক ফল, কড়া সমালোচনা নেটানাগরিকদের

এদিন অনুষ্ঠানের সূচনালগ্নে উদ্বোধনী সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী সংঘমিত্রা মিশ্র। সঙ্গীত শেষে তেহট্ট রামকৃষ্ণ আশ্রমের মহারাজ সর্বসুখানন্দজী সারদা মায়ের জীবনের বিভিন্ন দিকের উপর আলোকপাত করেন। ‘সারদাতত্ব’-এর ব্যাখ্যা করেন মনোরঞ্জন হাজরা। ‘ সারদা স্তোত্রপাঠ’ করেন ড. রাকেশ দাস।

সারদা মায়ের মহাপ্রয়াণ হলেও তিনি আমাদের মধ্যেই বিরাজমান আছেন। তাঁর উপলব্ধি আমাদের মর্মে আছে।উনবিংশ শতাব্দীর নারীমুক্তি আন্দোলনের তিনি অন্যতম পথিকৃৎও বটে।

আরও পড়ুন রাজনৈতিক স্বার্থসিদ্ধির জন্যেই সিএএ ও এনআরসির বিরোধিতা করা হচ্ছে, অভিযোগ আরএসএস প্রধানের

আজকের কার্যক্রম বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে সভানেত্রী সঙ্গীতা সান্যাল বলেন যে, “মাতৃশক্তির আরাধনার মাধ্যমেই যুগে যুগে পাপীরা পরাজিত হয়েছে। আমাদের সমাজও আজ পাপে পূর্ণ হয়েছে। তাই সারদা মায়ের আরাধনা আমাদের শক্তিশালী করবে অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করতে।”

এদিনের কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী তরুণ কুমার ব্যানার্জি, ডাঃ সন্দীপন নন্দন ঘোষ, পিংকি ঘোষ ও আরও অনেকে।স্বরচিত আবৃত্তি পরিবেশন করেন মিতালী মুখার্জি। সঞ্চালনা ও ব্যবস্থাপনায় ছিলেন মিলন খামারিয়া।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here