করোনা সংক্রামিত রোগী আসার আশঙ্কায় চিকিৎসকের বাড়িতে যাওয়ার রাস্তা আটকে দিল এলাকার বাসিন্দারা, গ্রেফতার ১

সুশান্ত ঘোষ, উত্তর ২৪ পরগনা, ২৪ এপ্রিল: চিকিৎসকের চেম্বারে আসতে পারে করোনা আক্রান্ত রোগী এই আশঙ্কায় চিকিৎসকের বাড়িতে যাওয়ার রাস্তা বাঁশ দিয়ে আটকে দিল এলাকার বাসিন্দারা। এমনই ঘটনা ঘটল উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগর থানার কল্যাণগড় পুরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের প্রফুল্লনগর এলাকায়। খবর পেয়ে এলাকায় সংবাদিকরা গেলে তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন এলাকার সাধন সরকার নামে এক ব্যাক্তি। পুলিশকে জানালে পুলিশ সাধন সরকারকে গ্রেফতার করে।

স্থানীয় সূত্রের খবর, চিকিৎসক সুব্রত শীল বর্তমানে নদিয়া জেলার শান্তিপুর হাসপাতালে কর্মরত। তার পুত্র দেবপম শীল মেডিক্যাল কলেজে ডাক্তারির প্রথম বর্ষের ছাত্র। লকডাউনের মধ্যে নিজের বাড়ি প্রফুল্লনগরে কিছু ইমারজেন্সি রোগী দেখছিলেন তিনি। অভিযোগ, গত মঙ্গলবার থেকে পাড়ার কিছু যুবক হটাৎ করে গলির মুখ বাঁশ দিয়ে আটকে দেয়। করোনা রোগী যাতে না আসে সেই কারণেই নাকি এই কান্ড ঘটিয়েছে তারা। চিকিৎসকের সঙ্গে এ ব্যাপারে কিছু আলোচনা না করে এমন কান্ড করায় হতাশ চিকিৎসক। হতবাক ডাক্তারের ছাত্র দেবপম। এলাকার প্রতিবেশীদের হুমকিতে রীতিমতো আতঙ্কিত ওই চিকিৎসক ও তার পরিবার। তাদের অভিযোগ, কটুক্তি করা হচ্ছে তাদের। এদিন সংবাদিকদের সামনেই কর্যত ওই চিকিৎসক ও তার স্ত্রীকে হুমকি দেন সাধনবাবু সহ আরও কয়েক জন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে অশোকনগর থানার পুলিশ এসে বাঁশের ব্যারিকেট খুলে দেয়।

ঘটনায় কার্যত ভেঙে পড়েছেন ওই চিকিৎসকের পরিবার। ছাত্র দেবপম শীল হতাশ হয়ে বলেন, এমন ঘটনার পরে চিকিৎসক হতেই তার ভয় করছে। কাদের জন্য আমরা জীবন বিপন্ন করে চিকিৎসা করি। যদিও নিজের প্রতিবেশীদের নামে লিখিত অভিযোগ করতে রাজি নয় চিকিৎসক। এলাকায় খবর সংগ্রহ করতে গেলে সাংবাদিক ও ওই চিকিৎসক পরিবারের সঙ্গে খারাপ আচরণ করার অভিযোগে সাধন নামে ওই ব্যাক্তিকে পুলিশ গ্রেফতার করে। ধৃতকে শুক্রবার বারাসাত আদালতে তোলা হলে বিচারক জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেয়।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here