“উত্তর কোরিয়ার শাসকের মাসতুতো বোন মমতা, তারা একই গোত্রের তাই গণতন্ত্র মানে না”, মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ সায়ন্তনের

জে মাহাতো, আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ১৬ জুলাই:
নন্দীগ্রাম ও সিঙ্গুরের মানুষদের জন্য মুখ্যমন্ত্রী কিছুই করেননি কেবল ভোটের সময় তাদের ব্যবহার করা হয়েছে, মেদিনীপুরে এসে তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বৃহস্পতিবার এভাবেই কটাক্ষ করলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। 

কিছুদিন আগে সিঙ্গুর-নন্দীগ্রাম আন্দোলনের প্রসঙ্গ তুলে দিলীপ ঘোষ সহ রাজ্য বিজেপিকে নিশানা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তারই পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে সায়ন্তন বসু বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর ব্রেনোলিয়া খাওয়া দরকার। তিনি ভুলে গেছেন তৎকালীন সময়ে লালকৃষ্ণ আদবানীর সহায়তায় তিনি নন্দীগ্রাম সিঙ্গুর আন্দোলন গড়ে তুলেছিলেন, সিঙ্গুরের প্রতিবাদ মঞ্চে রাজনাথ সিংয়ের আসার কথাও ফের একবার স্মরণ করিয়ে দেন রাজ্য বিজেপির এই নেতা। ২০২১ এর নির্বাচনকে মাথায় রেখে তার প্রতিশ্রুতি, ক্ষমতায় এলে নন্দীগ্রাম সিঙ্গুরের মানুষের জন্য কাজ করবে বিজেপি। একদিকে শিল্প হবে অন্যদিকে কৃষকরাও বাচঁবে বিজেপি সরকার এলে। 

এদিন তিনি এই রাজ্যে গণতন্ত্র নেই দাবি করে বলেন, “উত্তর কোরিয়ার শাসকের মাসতুতো বোন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তারা একই গোত্রের তাই গণতন্ত্র মানে না,” ঠিক এই ভাষাতেই মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক। 

রাজ্য রাজ্যপাল সংঘাত নিয়েও রাজ্যের শাসক শিবিরকে আক্রমন করেন সায়ন্তন বসু। তিনি বলেন, রাজ্যপালকে দেখলেই জেলার ডিএম এসপিরা পালিয়ে যান, ভয়ে সরকারি আধিকারিকরা রাজভবনে যান না বলে দাবি করেন তিনি। 

অন্যদিকে কেশিয়াড়িতে দলীয় সভায় যোগ দিতে যাওয়ার আগে মেদিনীপুর শহরে তিনি ফের একবার দাবি করেন, রাজ্য দাঁড়িয়ে রয়েছে বারুদের স্তুপের উপর। বীরভূম মালদার উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, পশ্চিমবঙ্গ বারুদের কেন্দ্রস্থল। অবিলম্বে কেন্দ্রীয় সরকারের হস্তক্ষেপ করা উচিত। সব মিলিয়ে মেদিনীপুরে এসে একের পর এক ইস্যুতে রাজ্য সরকারকে বিঁধলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here