কাশ্মীরে পরপর হিন্দু–শিখ নিধন, জঙ্গিদের খোঁজে ঘরে ঘরে সেনা তল্লাশি, আটক ৫৭০

আমাদের ভারত, ১০ অক্টোবর:জম্মু-কাশ্মীরে শেষ কয়েকদিনে সাধারণ মানুষকে টার্গেট করেছে সন্ত্রাসীরা। মৃতদের মধ্যে বেশির ভাগ শিখ ও হিন্দু। ভারতকে আঘাত করতেই জঙ্গি সংগঠনগুলির এবারের টার্গেট নিরস্ত্র হিন্দু এবং শিখ। তাদের সেই ষড়যন্ত্রকে বানচাল করতে বদ্ধপরিকর দেশের নিরাপত্তা বাহিনী। সূত্রের খবর, জম্মু-কাশ্মীরে ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সেনা। কার্যত ঘরে ঘরে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। কাউকে সন্দেহ হলেই আটক করা হচ্ছে। এখনো পর্যন্ত উপত্যকায় মোট ৫৭০ জনকে আটক করা হয়েছে।

আটকদের মধ্যে অনেকেই যুবক। আটক ব্যক্তিদের মধ্যে অনেকেই স্টোন ফেল্টার্স বা পাথরবাজ। নিরাপত্তারক্ষীদের অনুমান এদের কারও কারও সঙ্গে জঙ্গি সংগঠনের যোগ থাকতে পারে। সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলোর হয় এদের অনেকেই উপত্যাকায় কাজ করছে। আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ। গত এক সপ্তাহে কাশ্মীরে সাত জনকে খুন করেছে জঙ্গিরা। পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছে সেই আশঙ্কার কাশ্মীর ছাড়তে শুরু করেছেন হিন্দু ও শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ।

সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলির এই হত্যালীলা থামাতে ইতিমধ্যে নয়াদিল্লিতে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক হয়েছে। সূত্রের খবর, শ্রীনগরে পাঠানো হয়েছে ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর একজন শীর্ষ কর্তাকে। উপত্যকার ১৬টি জায়গায় ব্যাপক তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে এন আই এ।

চলতি বছরে জম্মু-কাশ্মীরে এখনো পর্যন্ত ২৮ জনকে খুন করেছে জঙ্গিরা। সাম্প্রতিক সময়ে শ্রীনগরে একটি স্কুলে ঢুকে এক হিন্দু ও এক শিখ শিক্ষককে গুলি করে হত্যা করেছে জঙ্গিরা। তার আগের দিন কাশ্মীরের এক ওষুধের দোকান মালিককে তাঁর দোকানেই গুলিতে ঝাঁঝরা করেছে জঙ্গিরা। এছাড়াও আরও চারজনকে খুন করেছে সন্ত্রাসীরা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here