নিরাপত্তারক্ষীর হাতে খুন সহকর্মী

আমাদের ভারত, হাওড়া, ২৫ মে: এক নিরাপত্তারক্ষীকে মাথায় হাতুড়ি দিয়ে মেরে খুন করার অভিযোগ উঠল অন্য এক নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার দুপুরে পাঁচলা থানার জলাবিশ্বনাথপুর হাউলী বাগানে। মৃতের নাম রমেশ রজক (৩০)। বাড়ি জলপাইগুড়ি এলাকায়। অভিযুক্ত নিরাপত্তারক্ষীর নাম দীপক ঠাকুর। বাড়ি বিহারের মধুবনিতে। পাঁচলা থানার পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

জানাগেছে, হাউলিবাগানের ফাউন্ড্রি পার্কে ৩ জন নিরাপত্তারক্ষী কাজ করে। সোমবার একজন ব্যক্তিগত কাজে বাইরে গেলে রমেশের সঙ্গে দীপকের বচসা বাধে। অভিযোগ, দুজনেই মদ্যপ অবস্থায় থাকায় বচসা চরমে উঠলে আচমকা দীপক একটি হাতুড়ি দিয়ে রমেশের মাথায় মারে। ঘটনাস্থলেই রমেশের মৃত্যু হয়। এদিকে বাইরে থাকা অন্য নিরাপত্তারক্ষী কাজ থেকে ফিরলে তাকে মারতে তেড়ে যায়। সে প্রাণভয়ে পালিয়ে গিয়ে পুলিশে খবর দেয়। ‌পরে পাঁচলা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে।

এদিকে দীপক রমেশকে খুনের কথা স্বীকার করলেও তার দাবি, দীর্ঘদিন ধরে রমেশ তার উপরে অত্যাচার করে আসছিল সেই কারণেই আজ সে রমেশকে খুন করেছে।

অন্যদিকে ফাউন্ড্রি পার্কের মালিকের বক্তব্য, ৩ মাস ধরে এরা একসাথে কাজ করলেও দুজনের মধ্যে ঝামেলার কথা কোনদিন শুনতে পাইনি। আজকে শুনলাম দুজনে মদ্যপ অবস্থায় মারামারি করতে গিয়ে এই ঘটনা। পাঁচলা থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here