বিজেপির সর্বভারতীয় নেতাদের বহিরাগত বলার তীব্র বিরোধিতা করলেন শুভেন্দু অধিকারী

আমাদের ভারত, হলদিয়া, ১৫ ডিসেম্বর : বিজেপির সর্বভারতীয় নেতাদের বহিরাগত বলায় তৃণমূলের জোরালো সমালোচনা করলেন শুভেন্দু অধিকারী। তিন বলেন, আগে আমরা ভারতীয় তারপরে বাঙালি। আজ শুভেন্দু অধিকারীর বক্তব্য থেকে এটা স্পষ্ট যে তিনি শীঘ্রই বিজেপিতে যোগ দেবেন। সেটা শুধু সময়ের অপেক্ষা।

আজ হলদিয়ার হেলিপ্যাড ময়দানে তাম্রলিপ্ত জাতীয় সরকারের সর্বাধিনায়ক সতীশচন্দ্র সামন্তের ১২১ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে অনুষ্ঠান মঞ্চে উপস্থিত হয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, সবার আগে আমরা ভারতীয়, পরে বাঙালি। তৃণমূল নেতা–নেত্রীরা বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের যেভাবে বহিরাগত আখ্যা দিয়ে বিভিন্ন ভাবে আক্রমণ করছেন তার তীব্র বিরোধিতা করেন শুভেন্দু। মঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘‘জওহরলাল নেহরু প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন সতীশ সামন্তকে সব সময় সমীহ করে চলতেন। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ভারত থেকে যে সব প্রতিনিধি দল গিয়েছিল, সে দলে সতীশবাবু প্রতিনিধিত্ব করতেন। সতীশবাবু এগিয়ে গেলেই প্রধানমন্ত্রী উঠে দাঁড়াতেন। সতীশবাবু কখনও জওহরলাল নেহরুকে বহিরাগত ভাবতেন না। আর পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু কখনওই সতীশবাবুকে কখনও অহিন্দিভাষী ভাবতেন না। এটাই ভারতবর্ষ।”

নাম না করে তিনি তৃণমূল সুপ্রিমোকে উদ্যেশ্য করে বলেন, ‘‘কেন এখানে ফর দ্য পার্টি, বাই দ্য পার্টি, অব দ্য পার্টি ব্যবস্থা থাকবে! আমরা ভাল কাজের জন্য লড়ব। সংবিধানে যে বলে গিয়েছে, গণতন্ত্র ফর দ্য পিপ্‌ল, বাই দ্য পিপ্‌ল, অব দ্য পিপ্‌ল, সেটা পশ্চিমবঙ্গে ফিরিয়ে আনতে হবে।’’ তিনি আরো বলেন, ‘‘আমরা দেশমাতৃকাকে বন্দনা করব। বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান করব, কৃষকের অধিকার ফেরাব আর মিলেমিশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাই হবে আমাদের একমাত্র পথ। গণতন্ত্র ফেরানোর লড়াইয়ে আপনাদের সেবক শুভেন্দু অধিকারী থাকবে।’’

আজও তিনি তাঁর নিজের অবস্থান স্পষ্ট না করলেও মঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে যা ইঙ্গিত দিয়েছেন তাতে রাজনৈতিক মহল মনে করছেন তিনি খুব শিগগিরই তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেবেন। এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৭ ডিসেম্বর তাম্রলিপ্ত জাতীয় সরকারের প্রতিষ্ঠাদিবসের অনুষ্ঠানের পর শুভেন্দু অধিকারী দিল্লিতে গিয়ে ১৮ তারিখ বিজেপিতে যোগ দেবেন। ঐদিনই অমিত শাহের সঙ্গে ফিরে এসে ১৯ তারিখ মেদিনীপুরে বিজেপির সভায় অমিত শাহের সঙ্গে একই মঞ্চে থাকবেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here