দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিজেপির মিছিলে গরহাজির কেন শুভেন্দু?

শ্রীরূপা চক্রবর্তী, আমাদের ভারত, কলকাতা, ২৮ জুলাই: রাজ্যের শাসকদলের পাহাড় প্রমাণ দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনে দলের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি থাকা নেতৃত্বকে সামনে রেখেই কি এগোতে চাইছে বিজেপি? সেই কারণেই কি নিয়োগ দুর্নীতির বিরুদ্ধে কলকাতায় হওয়া বিজেপির বিশাল মিছিলে ছিলেন না রাজ্যের বিরোধী দলনেতা? আজকের মিছিলে শুভেন্দু অধিকারী অনুপস্থিতি ঘিরে এমনি নানা জল্পনা তুঙ্গে দলের অভ্যন্তরে।

রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেপ্তারের পর থেকেই একেবারে ময়দানে নেমে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিজেপি। পার্থকে অপসারণের সাথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগের দাবিতেও সরব বঙ্গ বিজেপির সব নেতারা। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সংবাদ মাধ্যম সব জায়গাতেই সুকান্ত, শুভেন্দু, দিলীপকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্য সরকার ও তৃণমূল কংগ্রেসের কড়া সমালোচনায় মুখর হতে দেখা গেছে। অথচ যখন এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে কলকাতার বুকে বিজেপির বিশাল মিছিল হলো, সেখানে দেখা গেল না রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে হারিয়ে বিধায়ক নির্বাচিত হয়ে আসা শুভেন্দু অধিকারীকে। দিলীপ ঘোষও এদিনের মিছিলে ছিলেন না। এই বিষয়ে তাকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান, তিনি দিল্লিতে আছেন নেতৃত্বের নির্দেশ মেনে সবাই কাজ করছে।

দলের মধ্যে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে, স্বচ্ছ ভাবমূর্তি ইমেজকে সামনে রেখেই বিজেপি এগোতে চাইছে, সেই কারণেই নেতৃত্বের নির্দেশে শুভেন্দু দুর্নীতির বিরুদ্ধে হওয়া মিছিলে গরহাজির। কারণ সারদা নারদা দুর্নীতিতে শুভেন্দুর নাম জড়িয়েছিল। ক্যামেরার সামনে টাকা নিতে দেখা গেছে। আর তৃণমূল বার বার অভিযোগ করে বিজেপির ওয়াশিং মেশিনে ঢুকে সেটা সাফ হয়ে গেছে। সেই কারণেই কি বিজেপি নেতৃত্ব চাইছে না এই ঘোরপ্যাচের মধ্যে পড়তে। তাই স্বচ্ছ ভাবমূর্তি থাকা অধ্যাপক তথা রাজ্য সভাপতি সুকান্তর নেতৃত্বেই এই মিছিল সংগঠিত হয়েছে। শুভেন্দু না থাকলেও এদিনের মিছিলে উপস্থিত ছিলেন পুরুলিয়ার সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো, রাহুল সিনহা– যাদের বিরুদ্ধেও কোনো দুর্নীতির অভিযোগ নেই। আসলে বিজেপি এই বিষয়ে বিরোধীদের কোনো রকম সমালোচনার কোনো সুযোগ দিতে চাইছে না বলেই মনে করা হচ্ছে।

দিন কয়েক আগে দলের নেতাকর্মীদের দুর্নীতি প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করা হলে রাজ্য বিজেপির সভাপতি জোরের সঙ্গে বলেছেন, তাদের দলের পুরোনো কোনো নেতার বিরুদ্ধে কোনো দুর্নীতির অভিযোগ নেই। আর যারা নতুন এসেছে, দলে আসার পর তাদের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ নেই। এই বিষয়ে শুভেন্দুকে পাল্টা প্রশ্ন করা হলে সংবাদ মাধ্যমের সামনে তিনি প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। বরং বলেছিলেন যা বলার দলের অভ্যন্তরে বলব। এরপর আজ দেখা গেল বঙ্গ বিজেপির স্বচ্ছ ভাবমূর্তি থাকা নেতৃত্বকে সামনে রেখেই দুর্নীতি বিরোধী আন্দোলনে শামিল হলো পদ্মশিবির। কারণ এই আন্দোলন দলকে আগামী দিনে যে বড় মাইলেজ দেবে তা বলাই বাহুল্য।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here