অসুস্থ পুরুলিয়ার প্রখ্যাত নাটুয়া শিল্পী হাঁড়িরাম কালিন্দী

সাথী দাস, পুরুলিয়া, ২২ সেপ্টেম্বর: অসুস্থ প্রখ্যাত নাটুয়া শিল্পী হাঁড়িরাম কালিন্দী। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে নিয়ে যাওয়া হল দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। আর্থিক ও শারীরিকভাবে পাশে থাকলেন তথ্য সংস্কৃতি দফতরের কর্মী পার্থ চক্রবর্তী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হংসেস্বর মাহাতো। সত্তরোর্ধ এই শিল্পী স্নায়ুর রোগে আক্রান্ত হয়ে পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো গভর্নমেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। আজ মূলত এই দুই জনের জন্য উন্নত চিকিৎসার সুযোগ পেলেন হাঁড়িরাম।

বিখ্যাত উত্তরা ছবির একেবারে শেষ দৃশ্যে এক টিলায় মুখোশ পরে নাটুয়া নাচ করতে করতে কুস্তি লড়ে যাচ্ছেন ছবির দুই প্রধান কুশীলব তাপস পাল ও শংকর চক্রবর্তী। অসামান্য দক্ষতায় চিত্র পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের ছবির সেই দৃশ্যটা লেন্স বন্দী করলেও নাটুয়া শিল্পীদের সেই অসাধারণ নাচ ছবির মহিমাকে অনেকটাই বাড়িয়ে তুলেছিল। ছবির সেই নাটুয়া দলটি ছিল আসলে পুরুলিয়ার বিখ্যাত শিল্পী হাঁড়িরাম কালিন্দীর। পুরুলিয়ার এই শিল্পীর অসাধারণ প্রতিভা দেখে মুগ্ধ হন শুধু বুদ্ধদেব দাশগুপ্তই নন বাংলা তথা সারা দেশের বহু বিখ্যাত ব্যাক্তিত্ব। তার নজির পাওয়া যায় হাঁড়িরামের বাড়িতে থাকা গণ্ডাগণ্ডা মানপত্র ও শংসাপত্রতে। বহু পুরস্কারে ভূষিত এই শিল্পীর রয়েছে বহুমুখী প্রতিভা।

একদিকে নাটুয়া নাচ অন্য দিকে ঢাক। দুই কলাতেই সিদ্ধহস্ত তিনি। অর্ধ শতাব্দী শিল্পকে দিয়ে দেওয়া এই শিল্পী আজ আর ঢাকের কাঠি ছুঁতে পারবেন না। বার্ধ্যক্যের জন্য নাটুয়াতো ছেড়েছেন অনেক আগেই। পুরুলিয়ার বলরামপুরের পাঁড়দ্দা গ্রামে থাকা এই শিল্পী এখন ব্যাধির সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন।

হংসেস্বর মাহাতো বলেন, “এই শিল্পী আমাদের গর্ব। নাটুয়া নৃত্যের স্বর্ণযুগ এই শিল্পীরা ধরে রেখেছিলেন। আজ তিনি অসুস্থ। মন ভালো নেই আমাদের। তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করি।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here