ছেলে করোনায় আক্রান্ত, দম্পতির ঠাঁই রাস্তায়

আমাদের ভারত, হাওড়া, ২৩ জুন: ছেলে করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় দম্পতিকে ঘরে ঢুকতে দিল না বাড়িওয়ালা, সারারাত রাস্তায় কাটিয়ে মঙ্গলবার সকালে পথ অবরোধ শামিল হল দম্পতি। শেষে প্রশাসনের উদ্যোগে তাদের ঠাঁই হল সেফ হোম শেল্টারে।

জানাগেছে, হাওড়ার ডোমজুড়ের শলপ বটতলার বাসিন্দা এক বৃদ্ধ দম্পতির ছেলের কয়েকদিন আগে জ্বর সহ অন্যান্য উপসর্গ দেখা দেওয়ায় বৃহস্পতিবার তারা ছেলেকে হাওড়া জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের চিকিৎসকরা যুবকের শারীরিক উপসর্গ দেখে তার লালা রসের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠায়। পরে দম্পতি ছেলেকে নিয়ে বাড়ি চলে আসে। এদিকে ছেলেকে নিয়ে বাড়ি চলে আসলেও সোমবার তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ আসে। পরে বিকেলে ডোমজুড় স্বাস্থ্য কেন্দ্রের স্বাস্থ্য কর্মীরা যুবকের বাড়ি থেকে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে নিয়ে গিয়ে ফুলেশ্বরের সঞ্জীবন হাসপাতালে ভর্তি করে।

এদিকে করোনা আক্রান্ত ছেলে হাসপাতালে চলে গেলেও দম্পতি ছেলেকে নিয়ে হাসপাতালে যাতায়াত করায় তাদের থেকে এলাকায় করোনা সংক্রমণ ছড়াতে পারে এই আশঙ্কায় বাড়িওয়ালা ও প্রতিবেশীরা দম্পতিকে বাড়িতে ঢুকতে বাধা দেয় বলে অভিযোগ। দম্পতির অভিযোগ, সোমবার বিকেলে বাড়িওয়ালা ও প্রতিবেশীরা দাবি করে তাদের এলাকায় থাকা যাবে না, যদি থাকতে হয় তাহলে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে আসলেই তবেই তাদের ঢুকতে দেওয়া হবে। তাদের অভিযোগ, বাড়িতে ঢুকতে না পেরে তারা ডোমজুড় থানায় গেলেও পুলিশ তাদের কোনও রকম সাহায্য করেনি। তার ফলে বাধ্য হয়ে তারা সারারাত রাস্তায় কাটিয়েছে।

অন্যদিকে এলাকার মানুষদের এই অমানবিকতার বিরুদ্ধে মঙ্গলবার সকালে ওই দম্পতি হাওড়া আমতা রাস্তা অবরোধ করে। তারা রাস্তার মাঝখানে বসে থাকে। দম্পতিকে সমর্থন করতে এগিয়ে আসে আশা কর্মীরা। পরে ডোমজুড় থানার পুলিশ ও প্রশাসনের আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে দম্পতিকে বুঝিয়ে রাস্তা অবরোধ মুক্ত করে এবং তাদের স্থানীয় একটি সেফ হোম শেল্টারে রাখার ব্যবস্থা করে। বিষয়টি নিয়ে ডোমজুড়ের প্রশাসনিক কর্তার বক্তব্য মানুষের মধ্যে সচেতনতার অভাবের ফলে এই ঘটনা। আমরা দম্পতিকে একটি নিরাপদ আশ্রয় রেখেছি। এলাকার মানুষদের বোঝানোর কাজ চলছে। আশা করা যায় খুব শীঘ্র সমস্যা মিটে গিয়ে দম্পতি বাড়ি ফিরে যাবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here