সংঘ পরিবারের আদর্শ বিরোধী কথা বলে, কী করে খগেন মুর্মু বিজেপির গুরু দায়িত্ব পান, প্রশ্ন উঠেছে দলের অন্দরে

প্রদীপ দাস, আমাদের ভারত, ১৭ জুন: সংঘ পরিবারের আদর্শের পরিপন্থী কথা বলে কী করে খগেন মুর্মু বিজেপিতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পেলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে দলের অন্দরে। এই নিয়ে শুধু বিজেপি নয় সংঘ পরিবারের অন্যান্য সংগঠনের মধ্যেও অসন্তোষ ছড়িয়েছে। কারণ সংঘ পরিবার আদিবাসীদের হিন্দু মনে করলেও খগেন মুর্মু তা মানেন না।

সম্প্রতি তপশিলি উপজাতি মোর্চার সভাপতি করা হয়েছে উত্তর মালদার সংসদ সিপিএম থেকে আসা খগেন মুর্মু’কে। বিজেপির টিকিটেই তিনি প্রথমবার সাংসদ নির্বাচিত হন। বিজেপিতে তাঁর এই গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পাওয়া নিয়ে সংঘ পরিবারের বিভিন্ন মহলে উঠেছে। কারণ তিনি লোকসভায় জিরো আওয়ারে যা বলেছিলেন তাতে পরিস্কার তিনি আদিবাসীদের হিন্দু মনে করেন না। তাঁর এই বক্তব্য সামনে আসার পরই বিতর্ক জোরদার হয়েছে দলের ভেতরে।

খগেন মুর্মু লোকসভায় জিরো আওয়ারে বলেছিলেন, আদিবাসীদের ধর্ম সরনা। এই প্রাচীন ধর্ম অনুসারে আদিবাসীরা গাছপালা, পাহাড়কে সম্পদ মনে করে পুজা করেন। কিন্তু বর্তমানে ধর্মান্তকরণের ফলে এই ধর্ম সংকটে পড়েছে। দেখা যাচ্ছে জনগণনার সময় আদিবাসীরা হিন্দু বা খ্রিষ্টান ধর্ম লেখেন। তাই এই ধর্ম আজ অস্তিত্বের সংকটে পড়েছে। অধ্যক্ষের কাছে তাঁর আবেদন ছিল জনগণনার সময় যেন সরনা কোড রাখা হয়। তাহলে এই প্রাচীন ধর্মের সংরক্ষণের জন্য এটা ন্যায় সঙ্গত হবে। তিনি বলেছিলেন, আদিবাসীদের লোভ দেখিয়ে ধর্মান্তরিত করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সর্বভারতীয় সহ-সম্পাদক শচীন্দ্রনাথ সিংহ বলেন, আদিবাসীদের হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত করার কোনও প্রশ্নই ওঠে না, কারণ তারা হিন্দু ধর্মেই আছেন। সব জনজাতিই হিন্দু। পরম্পরাগত ভাবে কিছু পার্থক্য থাকতে পারে কিন্তু এরা মূলত হিন্দু। তাই জনগনার ক্ষেত্রে সরনা বা আদার লেখা একদমই উচিত নয়। তারা হিন্দুধর্ম লিখবে। সরনা সম্পর্কে তাঁর বক্তব্য, সরনা কোনও ধর্ম নয়, এটা একটি ভাষা। এব্যাপারে প্রয়োজনে তিনি খগেন মুর্মুর সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে সংঘ ঘনিষ্ঠ বুদ্ধিজীবী রন্তিদেব সেনগুপ্ত যিনি গত লোকসভা নির্বাচনে হাওড়া থেকে বিজেপির টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন তিনি বলেন, আদিবাসীরা মূলত হিন্দু। আমরা আদিবাসীদের হিন্দু থেকে আলাদা বলে মনে করি না। তাদের হিন্দু ধর্ম থেকে বিচ্ছিন্ন ভাবা উচিত নয়।

স্বাভাবিকভাবেই খগেন মুর্মুর দাবি নিয়ে তীব্র ক্ষোভ শুরু হয়েছে সংঘ পরিবারে বিভিন্ন মহলে। তাঁদের বক্তব্য, যিনি সংঘ পরিবারের দৃষ্টিভঙ্গি, আদর্শ জানেন না, তাঁকে কিভাবে বিজেপির তপশিলি মোর্চার সভাপতি করা হল?

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here