উগ্রপন্থা ছড়াচ্ছে, সন্ত্রাসে যোগ রয়েছে, পাঁচ বছরের জন্য পিএফআইকে নিষিদ্ধ ঘোষণা কেন্দ্রের

আমাদের ভারত, ২৮ সেপ্টেম্বর:
পাঁচ বছরের জন্য পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়াকে(PFI) নিষিদ্ধ ঘোষণা করল কেন্দ্র। সন্ত্রাসে যোগ ও বেআইনি কাজ কর্মের জন্য পিএফআই এর সমস্ত সহযোগী সংস্থাকে এবং অনুমোদিত সংস্থার উপর নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে। অবিলম্বে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকার।

কেন্দ্রের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, জনসমক্ষে পিএফআই ও সহযোগী সংস্থা বা প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের আর্থ-সামাজিক, শিক্ষাগত, রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে তুলে ধরলেও পর্দার আড়ালে সমাজের একটি নির্দিষ্ট অংশের মধ্যে উগ্রপন্থার বীজ বপন করছে একাধিক গোপন কর্মসূচির মাধ্যমে। যা দেশের গণতন্ত্রের ভিত্তিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে এবং দেশের সাংবিধানিক কর্তৃপক্ষ ও সাংবিধানিক কাঠামোকে চূড়ান্ত অবহেলা করার লক্ষ্যেই কাজ করছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়েছে, একাধিক অপরাধমূলক কাজ ও সন্ত্রাসমূলক কাজকর্মের সঙ্গে জড়িত পিএফআই বিদেশ থেকে অর্থ সাহায্য পায়। তারা দেশের আভ্যন্তরীণ সুরক্ষার ক্ষেত্রে বড়সড় উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। বেশ কয়েকটি উদাহরণ দিয়ে বলা হয়েছে পিএফআই সন্ত্রাসের সঙ্গে যুক্ত।

কেন্দ্রের বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়েছে পিএফআই এর সদস্যরা আইসিসেও যোগ দিয়েছে। সিরিয়ায় সন্ত্রাসমূলক কাজকর্মে জড়িত থেকেছে। জঙ্গি সংগঠন জামাত উল মুজাহিদিনের সঙ্গেও পিএফআই এর যোগ আছে।

এই পরিস্থিতিতে বেআইনি কাজ কর্ম আইনের ৩ নম্বর ধারার এক উপচ্ছেদের আওতায় যে ক্ষমতা আছে সেই ক্ষমতা প্রয়োগ করে পিএফআইকে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে।

সম্প্রতি দেশজুড়ে পিএফআই নেতা ও সদস্যদের বাড়ি অফিসে যৌথভাবে তল্লাশি চালায় এন আই এ, ইডি রাজ্য পুলিশ। ২০০–র–ও বেশী পিএফআই সাথে যুক্ত ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। পি এফ আই নেতা ও ক্যাডাররা সন্ত্রাসবাদে অর্থ যোগান, অস্ত্র প্রশিক্ষণের জন্য শিবিরের আয়োজনের মতো কাজের সাথে যুক্ত বলে লাগাতার তথ্য প্রমাণ পেয়েছে এনআইএ।

দিল্লির ১৯টি, কেরলের ১১টি, কর্নাটকের ৮টি, অন্ধ্রপ্রদেশের ৪টি, হায়দ্রাবাদের ৫টি, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, বিহার, অসম, মণিপুর সহ দেশের ১৫ টি রাজ্যের ৯৩টি জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে প্রচুর ক্যাডারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত সপ্তাহের বুধবার কলকাতা পার্ক সার্কাসের তিলজলায় পিএফআই এর দপ্তরে তল্লাশি চালিয়ে ছিল এনআইএ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here